36 C
Dinajpur
Friday, July 19, 2019
Home Blog Page 44

যৌতুকের দাবীতে স্ত্রীর উপর স্বামীর বর্বরতা

0

শ্যামনগর উপজেলার গোবিন্দপুরের মাদকাসক্ত স্বামী যৌতুকের দাবীতে স্ত্রীর উপর নির্যাতন করে জখম করেছে। জখমী শ্যামনগর হাসপাতালে ভর্তি রয়েছে। হাসপাতাল সূত্রে ও নির্যাতিতার পিতা আরব আলী জানান, ৭ বছর আগে গোবিন্দপুর গ্রামের আবু তালেব গাজীর ছেলে আবু তাহেরের বিয়ে হয় একই গ্রামের আরব আলী কন্যা সোনিয়া পারভীনের।

বিয়ের সময় জামাতার দাবী হিসেবে নগত দেড়লক্ষ টাকা ও এক লাখ টাকার বিভিন্ন আসবাবপত্র যৌতুক হিসেবে দেয়া হয়। বিয়ের ১ মাস যেতে না যেতেই জামাতা আবু তাহের আবারও ৫০ হাজার টাকা দাবী করে। মেয়ের সুখের কথা চিন্তা করে গরীব পিতা আবারও ৫০ হাজার টাকা যৌতুক প্রদান করে। জামাতা এর মধ্যে মাদকাসক্ত হয়ে পড়ে। বছর যেতে না যেতেই ঘরে একটি পুত্র সন্তান জন্ম নেয়। নাম রাখা হয় সিহাব হাসান। বর্তমানে ছেলের বয়স ৬ বছর।

সোনিয়া পারভীনের অভিযোগ বিভিন্ন সময় স্বামী আবু তাহের মাদকাসক্ত হয়ে রাতে বাড়ী ফেরে এবং যৌতুকের টাকা দাবী করে নির্যাতন চালায়। মেয়ের সুখের কথা চিন্তা করে পিতা আরব আলী জামাইয়ের দাবী মেটানোর চেষ্টা করে।

গত বুধবার সন্ধা ৭টার পর আবু তাহের মাদকাসক্ত হয়ে বাড়ী ফিরে টাকার দাবীতে স্ত্রীর উপর নির্যাতন চালায়। টাকা দিতে না পারায় মাদকাসক্ত স্বামী সোনিয়ার উপর অমানুষিক নির্যাতন করে এক পর্যায়ে ব্লেড দিয়ে সোনিয়ার মাথায় কুপিয়ে মাথার ত্বক জখম করে। এসময় অতিরিক্ত রক্ত ক্ষরনের কারণে সোনিয়া অজ্ঞান হয়ে পড়ে। এসময় প্রতিবেশিরা এসে সোনিয়াকে উদ্ধার করে হাসপাতালে ভর্তি করে। বর্তমানে সে হাসপাতালে চিকিসসাধীন।

ওজন ৩৩০ কেজি, দেওয়াল ভেঙ্গে নেওয়া হল হাসপাতালে

0

ওজন ৩৩০ কেজি। শুনতে অবাক লাগলেও এমনই এক ব্যক্তির সন্ধান মিলেছে পাকিস্তানে। বিরল রোগে আক্রান্ত পাকিস্তানের পাঞ্জাব প্রদেশের সাদিকাবাদ জেলার বাসিন্দা নুর হাসান।

ওজন বাড়তে বাড়তে এতটাই বেড়ে গিয়েছিল যে, দীর্ঘদিন নড়াচড়া করতে পারেন না তিনি। উপায় ছিল না চিকিৎসার জন্য হাসপাতালে যাওয়ারও।

আর তাই শেষপর্যন্ত পাকিস্তানের সেনা প্রধানের কাছে সোশ্যাল মিডিয়ার মাধ্যমে আবেদন জানান তিনি। আর তাতে সাড়াও দেন পাকিস্তানের সেনাপ্রধান জেনারেল কামার জাভেদ বাজওয়া। এরপরই পাকিস্তানি সেনার তরফে বাড়ির দেওয়াল ভেঙে নুর হাসানকে প্রথমে লাহোরের সেনা হাসপাতালে নিয়ে আসা হয়।

কিছু পরীক্ষার পর তাকে স্থানীয় একটি হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। স্থানীয় সংবাদমাধ্যম সূত্রের খবর, সেখানেই অস্ত্রোপচার হবে নুর হাসানের।

ঝালকাঠিতে ফাঁস করা প্রশ্নের উত্তর তৈরির সময় পরীক্ষার্থীসহ আটক ৬

0

ঝালকাঠিতে সরকারি প্রথমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষক নিয়োগ পরীক্ষার প্রশ্নপত্র ফাঁস করে উত্তর তৈরি এবং বিভিন্ন কেন্দ্রের শিক্ষার্থীদের মধ্যে সরবরাহ করার সময় এক পরীক্ষার্থীসহ ছয়জন আটক করা হয়েছে।

আজ শুক্রবার সকালে পরীক্ষা চলাকালে কয়েকটি কেন্দ্রের আশপাশে অভিযান চালিয়ে জাতীয় নিরাপত্তা গোয়েন্দা সংস্থা (এনএসআই) ও পুলিশ তাদের আটক করে। এদের মধ্যে তিনজনকে এক বছর করে কারাদ- দিয়েছেন ভ্রাম্যমাণ আদালতের বিচারক নির্বাহী ম্যাজিসেট্রট মাসুমা আক্তার।

দ-প্রাপ্তরা হলেন পারীক্ষার্থী মনিষা রানি বিশ্বাস, তার স্বামী আসীম বিশ্বাস ও তার ভাই কিশোর দেউরি।

ঝালকাঠির এনএসআইর ফিল্ড অফিসার মো: আশিকুল ইসলাম জানান, পরীক্ষা শুরুর আগেই সদর উপজেলার ইছানীল জেবিআই মাধ্যমিক বিদ্যালয় কেন্দ্র এলাকায় পরীক্ষার্থী মনিষা ও তার স্বজনরা ফাঁস হওয়া প্রশ্নপত্র ফেসবুকে ম্যাসেঞ্জারের মাধ্যমে এনে উত্তর তৈরি করছিলেন। এ উত্তর পরীক্ষার বিভিন্ন কেন্দ্রে সরবরাহের চেষ্টা করেন তারা। গোপন সংবাদের ভিত্তিতে পুলিশ ও গোয়েন্দা সংস্থার কর্মকর্তারা অভিযান চালিয়ে তিনজনকে আটক করে।

এছাড়াও শহরের মহিলা কলেজ কেন্দ্রের সামনে থেকে একই অভিযোগে আরো তিনজনকে আটক করা হয়। প্রশ্নপত্র ফাঁস এবং অসদুপায় অবলম্বন ঠেকাতে জেলা প্রশাসন, পুলিশ ও গোয়েন্দা বিভাগের সদস্যরা যথেষ্ট তৎপর বলে জানিয়েছেন জেলা প্রশাসক মো: হামিদুল হক।

স্কুল ছাত্রীকে একা পেয়ে ধর্ষণের চেষ্টা

0

ঠাকুরাগাঁওয়ের বালিয়াডাঙ্গী উপজেলার পল্লীতে এক স্কুল পড়ুয়া ছাত্রী (১১) গৃহপালিত পশুকে মাঠে ঘাস খাওয়াতে যাওয়ার পথে তাকে আটক করে ধর্ষণের চেষ্টা করে।

জানা যায়, বালিয়াডাঙ্গী উপজেলার চাড়োল গ্রামের জৈনক রিক্সা চালকের শিশু কন্যা ও চাড়োল উচ্চ বিদ্যালয়ের ষষ্ঠ শ্রেণি পড়ুয়া ছাত্রী বৃহস্পতিবার দুপুর ১২ টায় তাদের গৃহপালিত গরু-ছাগল মাঠে ঘাঁস খাওয়াতে নিয়ে যাওয়ার পথে যুগীপুকুরের কাছে পৌঁছালে পূর্ব থেকেই ওৎ পেতে থাকা চাড়োল গ্রামের হায়দার আলীর ছেলে রুহুল আমিন (১৮) তাকে গতিরোধ করে তার শরীরের বিভিন্ন স্পর্শকাতর জায়গায় হাত দেয়।

পরে তাকে অসৎ উদ্দেশ্যে পাশ্ববর্তী পাট ক্ষেতে নিয়ে যাওয়ার চেষ্টা করলে সে চিৎকার দেয়। তার চিৎকারে লম্পট রুহুল আমিন ঘটনাস্থল থেকে দ্রুত পালিয়ে যায়। পরে স্কুল ছাত্রী বাড়িতে গিয়ে মাকে ঘটনার কথা খুলে বলে। তার মা স্থানীয় লোকজনের সহযোগীতায় তাকে নিয়ে বালিয়াডাঙ্গী উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করে।

হাসপাতালের জরুরী বিভাগের দায়িত্বরত চিকিৎসক উম্মে কুলসুম মনি জানান, স্কুল পড়ুয়া শিশু কন্যাকে প্রাথমিক চিকিৎসা শেষে হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। ২ নং চাড়োল ইউনিয়নের ইউপি সদস্য সুলতান আলী জানান, ওই ছাত্রীর বাবা নজরুল ইসলাম ঢাকায় রিক্সা চালায়। এ ঘটনাটি থানায় জানানো হয়েছে।

বালিয়াডাঙ্গী থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মোসাব্বেরুল হক জানান, ঘটনাটি জানার পর স্কুল ছাত্রীর মৌখিক জবানবন্দি শোনার জন্য এসআই মিজানুর রহমানকে বালিয়াডাঙ্গী হাসপাতালে পাঠানো হয়। অভিযোগ পেলে আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

সদরঘাটে নৌকাডুবি : নিখোঁজ দুই শিশুর মরদেহ উদ্ধার

0

রাজধানীর সদরঘাটে পাঁচ যাত্রীসহ নৌকাডুবির ঘটনায় নিখোঁজ দুই শিশুর মরদেহ উদ্ধার করা হয়েছে।

শুক্রবার (২১ জুন) সকাল সাড়ে ৬টার দিকে ডিঙ্গি নৌকা করে ওয়াইজঘাট থেকে নদীর ওপারে তিন সন্তান, শ্যালককে সঙ্গে নিয়ে রওয়ানা দেন বাবুল ফরাজি। সকাল ৬টা ৪০ মিনিটের দিকে লঞ্চের ঢেউয়ে নৌকাটি ডুবে যায়। খবর পেয়ে উদ্ধার অভিযান শুরু করে ফায়ার সার্ভিস, নৌ পুলিশ ও বাংলাদেশ কোস্ট গার্ড।

পরে সকাল সাড়ে ১০টায় তিনজনকে জীবিত উদ্ধারের কথা জানায় নৌ পুলিশ ও কোস্টগার্ড। তারা হলেন- বাবুল ফরাজি (৪২), শামিম মৃধা (৩০) ও ছয় মাসের একটি বাচ্চা। সে সময় ও নিখোঁজ ছিল দুই শিশু মেশকাত (১২) এবং নুসরাত (৫)।

সর্বশেষ বেলা ১১টা ৫০ মিনিটে মেশকাতের এবং সোয়া ১২টার দিকে নুসরাতের মরদেহ উদ্ধার করে কোস্ট গার্ডের ডুবুরি দল।

sadarghat1

কোস্ট গার্ড সদর দফতরের মিডিয়া উইংয়ের সদস্য কাজী ফয়সাল হোসেন ও মেরাজ আহমেদ জাগো নিউজকে জানান, ডিঙ্গি নৌকা যেখানে ডুবেছিল তার পাশ থেকেই মেশকাত ও নুসরাতের মরদেহ উদ্ধার করা হয়।

সদরঘাট নৌ পুলিশ থানার ওসি আব্দুর রাজ্জাক জাগো নিউজকে বলেন, সকাল সাড়ে ৬টার দিকে ওয়াইজঘাট থেকে নদীর ওপারে যেতে যাত্রীবাহী একটি ডিঙ্গি নৌকা রওয়ানা দেয়। এ সময় লঞ্চের ঢেউয়ে নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে দুই শিশুসহ পাঁচ যাত্রী নিয়ে নৌকাটি আনুমানিক ৬টা ৪০ মিনিটের দিকে ডুবে যায়। খবর পেয়ে নৌ পুলিশের চৌকস টিম কাজ শুরু করে।

ফায়ার সার্ভিস সদর দফতরের ডিউটি অফিসার রাসেল শিকদার জানান, সকাল ৭টায় নৌ ডুবির খবরে দুটি ডুবুরি দলসহ ফায়ার সার্ভিসের একটি ইউনিট পাঠানো হয়।

ইরানে হামলার অনুমোদন দিয়েছিলেন ট্রাম্প

0

মার্কিন ড্রোন ভূপাতিত হওয়ার পর ইরানের বিরুদ্ধে পাল্টা সামরিক হামলার অনুমোদন দিয়েছিলেন যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প। তবে পরে মত বদলান তিনি। মার্কিন গণমাধ্যমের প্রতিবেদনে এই তথ্য জানানো হয়।

হোয়াইট হাউসের জ্যেষ্ঠ কর্মকর্তাদের বরাত দিয়ে দ্য নিউইয়র্ক টাইমস জানিয়েছে, শুক্রবার ভোরের আলো ফোটার আগেই ইরানে পাল্টা সামরিক হামলার অনুমোদন দিয়েছিলেন ট্রাম্প। সুনির্দিষ্ট লক্ষ্যবস্তুতে হামলা চালানোর পরিকল্পনা করা হয়েছিল।

হোয়াইট হাউসের জ্যেষ্ঠ কর্মকর্তাদের ভাষ্য, ইরানে হামলা চালানোর লক্ষ্যে প্রাথমিক কাজ শুরু হয়েছিল। এ অবস্থা প্রেসিডেন্ট ট্রাম্প তাঁর মত বদলান। থামিয়ে দেওয়া হয় হামলার তোড়জোড়।

নাম প্রকাশ না করে ট্রাম্প প্রশাসনের এক জ্যেষ্ঠ কর্মকর্তার বরাতে নিউইয়র্ক টাইমসের প্রতিবেদনে বলা হয়, মার্কিন যুদ্ধবিমান আকাশে ছিল। রণতরী নির্ধারিত স্থানে অবস্থান নিয়েছিল। কিন্তু থামতে বলায় ক্ষেপণাস্ত্র আর ছোড়া হয়নি।

পরে যুক্তরাষ্ট্রের অন্য গণমাধ্যমও এ বিষয়টি নিয়ে প্রতিবেদন প্রকাশ করে। একটি বার্তা সংস্থা জানায়, প্রেসিডেন্ট ট্রাম্প বৃহস্পতিবার প্রায় পুরো দিন ইরান ইস্যু নিয়ে তাঁর জাতীয় নিরাপত্তা উপদেষ্টা ও কংগ্রেসের নেতাদের সঙ্গে বৈঠক করেন। পরে তিনি ইরানে হামলা চালানোর পরিকল্পনাটি স্থগিত করেন।

খবরে বলা হয়, মার্কিন পররাষ্ট্রমন্ত্রী মাইক পম্পেও ও জাতীয় নিরাপত্তা উপদেষ্টা জন বোল্টন ইরানে হামলা চালানোর পক্ষে ছিলেন। কিন্তু কংগ্রেসের নেতারা এ ব্যাপারে ট্রাম্পকে সতর্ক হতে বলেন।

ইরানে হামলার পরিকল্পনার বিষয়ে প্রকাশিত এই প্রতিবেদনের ব্যাপারে হোয়াইট হাউস কোনো মন্তব্য করেনি।

বিবিসি অনলাইনের প্রতিবেদনে জানানো হয়, যুক্তরাষ্ট্রের একটি সামরিক ড্রোন ভূপাতিত করার কথা বৃহস্পতিবার জানায় ইরান। এই ঘটনার পরই যুক্তরাষ্ট্র পাল্টা হামলার পরিকল্পনা নেয়।

ইরানের রেভল্যুশনারি গার্ড জানায়, হরমুজ প্রণালির কাছে ইরানের আকাশসীমা লঙ্ঘন করায় যুক্তরাষ্ট্রের একটি গোয়েন্দা ড্রোন বৃহস্পতিবার ভোরে তারা ভূপাতিত করে।

পেন্টাগন ইরানের আকাশসীমায় প্রবেশের অভিযোগ নাকচ করে বলেছে, আন্তর্জাতিক সীমার মধ্যে অবৈধভাবে ইরান তাদের ড্রোন ভূপাতিত করেছে। ড্রোনটি ছিল আন্তর্জাতিক জলসীমার ওপরে, ইরানের আকাশসীমায় নয়।

ড্রোনটি এমন এক সময় ভূপাতিত করা হলো, যখন ইরান ও যুক্তরাষ্ট্রের মধ্যে চরম উত্তেজনা চলছে। এই ঘটনায় তেহরান ও ওয়াশিংটনের মধ্যে সামরিক উত্তেজনা নতুন মাত্রা পেতে পারে বলে আশঙ্কা করা হচ্ছে।

মার্কিন সামরিক ড্রোন ভূপাতিত করে ইরান খুব বড় ভুল করেছে বলে মন্তব্য করেছেন যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প। তবে ইচ্ছাকৃতভাবে মার্কিন ড্রোন ভূপাতিত করা হয়েছে বলে মনে করেন না তিনি। আজ শুক্রবার বিবিসি অনলাইনের প্রতিবেদনে ট্রাম্পের এই মনোভাবের কথা জানানো হয়।

ট্রেনের টয়লেটেও ধর্ষণ!

0

বলাই বাহুল্য ইদানিং ধর্ষণের ঘটনা অনেক বেড়েছে। এবার ঢাকা-রাজশাহী আন্তঃনগর সিল্কসিটি এক্সপ্রেসের টয়লেটে এক কিশোরী যাত্রীকে ধর্ষণের চেষ্টা করা হয়েছে। এ ঘটনায় ওই বখাটেকে অন্যান্য যাত্রীরা আটক করে পুলিশে সোপর্দ করেছে।

বৃহস্পতিবার রাতে ট্রেনের ‘ঝ’ বগির টয়লেটে এ ঘটনা ঘটে। আটক যুবক মমিনুল ইসলাম (২৭) বর্তমানে ঈশ্বরদী রেল থানায় (জিআরপি) রয়েছে।

রেলওয়ে সূত্র জানায়, ট্রেনটি রাত পৌনে ১১টার দিকে রাজশাহী রেলওয়ে স্টেশনে পৌঁছায়। পরে অভিযুক্ত যুবককে আটক করে জিআরপি থানায় নেয়া হয়। সেখানে জিজ্ঞাসাবাদ করা হয়। এ সময় ঘটনার প্রাথমিক সত্যতা পেয়েছে পুলিশ। আটক যুবকের নাম মমিনুল ইসলাম (২৭)। তার বাড়ি চাঁপাইনবাবগঞ্জ জেলার থানাতলা এলাকায়। মমিনুল পেশায় রাজমিস্ত্রি।

রাজশাহী জিআরপি থানা পুলিশের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) সাঈদ ইকবাল জানান, বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় সিরাজগঞ্জের শহীদ ক্যাপ্টেন মনসুর আলী রেলওয়ে স্টেশন থেকে রাজশাহীর উদ্দেশে নানী ও খালার সঙ্গে ট্রেনে ওঠে ওই কিশোরী। ট্রেনটি ঈশ্বরদী বাইপাস পৌঁছালে ওই কিশোরী টয়লেটে যায়৷ এ সময় জোর করে ওই টয়লেটের মধ্যে ঢুকে পড়ে অভিযুক্ত যুবক মমিনুল।

এক পর্যায়ে তার মুখ চেপে ধরে এবং ধর্ষণের চেষ্টা চালায়। তবে কিশোরীর চিৎকারে টয়লেটের দরজার সামনে ভিড় করেন ট্রেন যাত্রীরা। প্রায় এক ঘণ্টা চেষ্টার পর দরজা খুলে মমিনুল। এ সময় তাকে গণপিটুনি দেয়া হয়।

পরে ট্রেনে কর্তব্যরত পুলিশ উপ-পরিদর্শক (এসআই) উজ্জ্বল গিয়ে ট্রেন যাত্রীদের হাত থেকে তাকে আটক করেন। এরপর ট্রেনটি রাজশাহী পৌঁছালে তাকে জিআরপি থানায় নিয়ে যাওয়া হয়।

প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে জানা যায়, আটক যুবক মমিনুল পেশায় একজন রাজমিস্ত্রি। তার কথাবার্তাও অসংলগ্ন। যেহেতু ঘটনাটি ঈশ্বরদী জিআরপি থানার অধীনে ঘটেছে তাই তার বিরুদ্ধে ওই থানাতেই মামলা করা হয়েছে। এ কারণে রাতের ফিরতি ট্রেনে আসামিকে ঈশ্বরদী থানায় পাঠানো হয়েছে।

কিশোরীকে ধর্ষণের সময় যুবক ধরা

0

সাভারে ১২ বছর বয়সী এক কিশোরীকে ধর্ষণের দায়ে মো. সাদ্দাম হোসেন (২৬) নামে এক বখাটেকে আটক করেছে পুলিশ। এ ঘটনায় থানায় মামলা দায়ের করে ভুক্তভোগী ওই কিশোরীকে স্বাস্থ্য পরীক্ষার জন্য ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের ওয়ান স্টপ ক্রাইসিস সেন্টারে পাঠানো হয়েছে।

বৃহস্পতিবার রাত সাড়ে ৮টার দিকে সাভারের হেমায়েতপুর শ্যামপুর এলাকায় এ ধর্ষণের ঘটনা ঘটে।

আটক সাদ্দাম সাভারের শ্যামপুর এলাকার কুতুব উদ্দিনের ছেলে। সে আগে গাড়িতে হেলপারি করলেও বর্তমানে মাদকাসক্ত ও এলাকায় ছিঁচকে চোর হিসেবে পরিচিত।

পুলিশ ও স্থানীরা জানায়, বৃহস্পতিবার রাতে ভুক্তভোগী কিশোরী একটি নির্মাণাধীন দোতলা বিল্ডিংয়ের নিচে বসেছিল। হঠাৎ সাদ্দাম হোসেন তাকে জোর করে ওই বিল্ডিংয়ের দোতলায় নিয়ে ধর্ষণ করে। এ সময় কিশোরীর চিৎকারে স্থানীয়রা বিষয়টি বুঝতে পেরে ঘটনাস্থলে গেলে সাদ্দাম পালিয়ে যাওয়ার চেষ্টা করে।

বিষয়টি ট্যানারি ফাঁড়িতে জানানো হলে পুলিশ ঘটনাস্থল থেকে মেয়েটিকে উদ্ধার করে এবং স্থানীয়দের সহায়তায় ধর্ষক সাদ্দামকেও আটক করে নিয়ে আসে।

সাভার চামড়া শিল্প নগরীর পুলিশ ফাঁড়ির উপ-পরিদর্শক (এসআই) মো. সোহেল জানান, ধর্ষক সাদ্দাম হোসেনের বিরুদ্ধে সাভার মডেল থানায় একটি মামলা দায়ের করা হয়েছে। এছাড়া ভুক্তভোগী কিশোরীকে উদ্ধার করে স্বাস্থ্য পরীক্ষার জন্য ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের ওয়ান স্টপ ক্রাইসিস সেন্টারে পাঠানো হয়েছে।

নির্মাণ ও গৃহসজ্জাশিল্প পণ্যের আন্তর্জাতিক প্রদর্শনী চলছে রাজধানী

0

রাজধানীতে চলছে নির্মাণ অবকাঠামো, কাঠ এবং আসবাবপত্র সংশ্লিষ্ট শিল্পের সর্বাধুনিক উদ্ভাবন, প্রযুক্তি ও পণ্যের তিন দিনব্যাপী দুটি আন্তর্জাতিক প্রদর্শনী।

বৃহস্পতিবার (২০ জুন) ইন্টারন্যাশনাল কনভেনশন সিটি বসুন্ধরার ১, ২, ২এ এবং ৩ নম্বর হলে ‘বাংলাদেশ বিল্ডকন-২০১৯’ এবং ‘জেট প্রেজেন্টস বাংলাদেশ উড-২০১৯’ নামে এই পৃথক দুই প্রদর্শণীর উদ্বোধন করেন ঢাকায় নিযুক্ত ভারতের ডেপুটি হাইকমিশনার বিশ্বদীপ দে।
পঞ্চমবারের মতো আস্ক ট্রেড অ্যান্ড এক্সিবিশনস (প্রা.)লিমিটেড এবং ফিউচারেক্স ট্রেড ফেয়ার অ্যান্ড ইভেন্টস (প্রা.) লিমিটেড যৌথভাবে প্রদর্শনী দুটির আয়োজন করেছে।

উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে এলজিইডির সুপারিনটেনডেন্ট প্রকৌশলী এ এন এম এনায়েত উল্লাহ, ফার্নিচার সেক্টর ইন্ডাস্ট্রি স্কিল কাউন্সিল লি. এর চেয়াম্যান মো. আবু ইউসুফ, বাংলাদেশ ফার্নিচার এক্সপোটার্স অ্যাসোসিয়েশনের সভাপতি কে এম আক্তারুজ্জামান, হাউজিং অ্যান্ড বিল্ডিং রিসার্চ ইনস্টিটিউটের (এইচবিআরআই) পরিচালক মোহাম্মদ শামীম আক্তার, ফিউচারেক্স ট্রেড ফেয়ার অ্যান্ড ইভেন্টস (প্রা.) লিমিটেডের এমডি আনভেশি, আস্ক ট্রেড অ্যান্ড এক্সিবিশন (প্রা.) লিমিটেডের এমডি টিপু সুলতান ভূঁইয়া, পরিচালক নন্দ গোপাল কে প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।

এবারের প্রদর্শণীতে বাংলাদেশসহ চীন, ভারত, তুরস্ক, হংকং, যুক্তরাষ্ট্র, শ্রীলঙ্কা, অস্ট্রিয়া, মালয়শিয়া এবং ইতালির ২৫০টি প্রতিষ্ঠানের ৩ হাজারেরও বেশি পণ্য স্থান পেয়েছে। নির্মাণ শিল্প সংশ্লিষ্ট বিভিন্ন ম্যাটেরিয়াল, ইকুইপমেন্ট, মেশিনারি এবং প্রযুক্তি তুলে ধরা হচ্ছে।

এছাড়া কাঠ ও আসবাবপত্র শিল্প নিয়ে অন্য প্রদর্শণীতে এ খাতের সংশ্লিষ্ট মেশিনারি, হার্ডওয়্যার অ্যান্ড টুলস, ফিটিং অ্যান্ড ফিক্সচার, লেমিনেট, বোর্ড, কোটিং, অ্যাব্রেসিভ অ্যান্ড অ্যাডেসিভসহ অন্যান্য পণ্য প্রদর্শিত হচ্ছে।

আয়োজকরা জানান, বাংলাদেশের নির্মাণ এবং আসবাব শিল্পকে আরও আধুনিকীকরণ এবং এর উৎপাদন বৃদ্ধি ও মানোন্নয়নে সক্ষম করতে এই আয়োজন।

প্রদর্শণী দু’টি প্রতিদিন বেলা ১১টা থেকে রাত ৮টা পর্যন্ত সবার জন্য উন্মুক্ত রয়েছে। তিন দিনব্যাপী এই প্রদর্শণী শেষ হবে আগামীকাল (২২ জুন)।

ধর্ষণের শিকার ফারজানার পরিবারকে হুমকি দেয়া হচ্ছে

0

ধর্ষণের ঘটনা জানাজানি হওয়ায় লোকলজ্জা ও ক্ষোভে বিষপানে আত্মহত্যা করা বরিশালের বাকেরগঞ্জ উপজেলার কলেজছাত্রী ফারজানা আক্তারের পরিবারকে ধর্ষণকারীরা হুমকি দিচ্ছে বলে অভিযোগ তুলেছে এলাকাবাসী।

শুক্রবার সকালে রাজধানীর জাতীয় প্রেস ক্লাবের সামনে মানববন্ধন করে বাকেরগঞ্জবাসী এ অভিযোগ করে। তাদের অভিযোগ, বৃহস্পতিবারও (২০ জুন) ধর্ষণকারীদের পক্ষ থেকে ফারজানার পরিবারকে হুমকি দেয়া হয়েছে। সেই সঙ্গে স্থানীয় পুলিশ প্রশাসন অভিযুক্তদের গ্রেফতারে কোনো ধরনের উদ্যোগ নিচ্ছে না বলেও জানান তারা।

বাকেরগঞ্জবাসীর অভিযোগ, স্থানীয় প্রভাবশালীদের সন্তান মো. তরিকুল ইসলাম, শাওন গাজী, শাওন ফরাজী, জোবায়ের, রাসেদ ও রাজিব ফারজানাকে ধর্ষণ করেছে। অভিযুক্তদের গ্রেফতার করে তাদের সর্বোচ্চ শাস্তি দাবি করা হয় মানববন্ধনে।

তারা আরও অভিযোগ জানায়, ফারজানা ১৬ জুন মারা গেলেও বাকেরগঞ্জ থানা নানা টালবাহানার পর ১৯ জুন মামলা নেয়। ফারজানার ধর্ষণকারীরা এখনও এলাকায় অবস্থান করছে। কিন্তু বাকেরগঞ্জ থানা পুলিশ তাদের গ্রেফতারে কোনো উদ্যোগ নেয়নি। অন্যদিকে স্থানীয় প্রভাবশালীরা ফারজানার ধর্ষণ ও হত্যা ভিন্নখাতে নেয়ার প্রচার চালাচ্ছে।

Farrzana.jpg

মানববন্ধনে মোজাম্মেল হোসেন মোহন বলেন, প্রশাসনকে টালবাহানা বন্ধ করে ফারজানার ধর্ষণকারীদের গ্রেফতার করতে হবে। আমরা জানি, ধর্ষণকারীদের একজন এখনও তাদের বাড়িতে অবস্থান করছে। কিন্তু পুলিশ বলছে তারা আসামিদের খুঁজে পাচ্ছে না। স্থানীয় প্রশাসন বলতে পারবে না যে, ধর্ষণে অভিযুক্তদের গ্রেফতারে তারা একবারের জন্যও অভিযান চালিয়েছে।

তিনি বলেন, অন্যদিকে ফারজানার পরিবারকে গতকালও হুমকি দেয়া হচ্ছে। তার পরিবার অসহায়। তারা নিঃস্ব বলে কি বিচার পাবে না? সেখানকার জনপ্রতিনিধিরা অঘোষিতভাবে ধর্ষণকারীদের পক্ষ নিয়েছে বলেও অভিযোগ করেন মোহন।

মানববন্ধনে কথা বলেন জাহিদুল আলম ওয়াসিম মল্লিক, সোহরাব মজুমদার, লোকমান জোমাদ্দার, মো. আশিকুর রহমান খান, এইচ এম কেনান, আলমগীর হোসেন, মনিরুজ্জামান মনির, মিজানুর রহমান, শাহাদাৎ হোসেন, হাসিবুর রহমান, মিলন ফরাজীসহ আরও অনেকে।

উল্লেখ্য, গত ১২ জুন রাতে প্রতিবেশির ফাঁকা বাড়িতে তুলে নিয়ে ফারজানা আক্তারকে ধর্ষণ করে বাকেরগঞ্জের কবাই এলাকার আব্দুল মতিনের ছেলে মো. রাজিব। এতে সহযোগিতা করে রাজিবের বন্ধু একই এলাকার তরিকুল ইসলাম, শাওন গাজী, শাওন ফরাজী, রাসেদ ও জোবায়ের। রাতভর ধর্ষণের পর সকালে ফারজানাকে বাড়ির সামনে ফেলে যায় তারা। এ ঘটনা এলাকায় জানাজানি হওয়ায় ওই দিনই ক্ষোভে-অপমানে বিষপান করে ফারজানা। এরপর অসুস্থ ফারজানাকে উদ্ধার করে বরিশাল শের-ই-বাংলা মেডিকেল ভর্তি করেন স্বজনরা। হাসাপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় ১৬ জুন মৃত্যু হয় তার।

Weather

Dinajpur
broken clouds
36 ° C
36 °
36 °
50 %
3.9kmh
63 %
Fri
36 °
Sat
37 °
Sun
36 °
Mon
31 °
Tue
29 °