39.1 C
Dinajpur
Thursday, April 25, 2019
Home Blog Page 2

শিল্পীর নিপুন শৈলিতে নির্মাণ করা হয়েছে দিরাইয়ের একটি মসজিদ

0

আজির উদ্দীন সুনামগঞ্জ প্রতিনিধি :: দৃষ্টিনন্দন, নান্দনিক কারুকার্য, নয়নাভিরাম ও শিল্পীর নিপুন শৈলিতে নির্মাণ করা হয়েছে দিরাইয়ের একটি মসজিদ। চোখ ধাঁধাঁনো নির্মাণশৈলীর এই মসজিদটি একনজর দেখার জন্য দেখতে বহুদূর-দূরান্ত থেকে লোকজন ছোটে আসছেন।

সুনামগঞ্জ জেলার দিরাই উপজেলার কুলঞ্জ ইউনিয়নের নাচনী গ্রামে প্রতিষ্ঠিত এ মসজিদটির নাম ‘নাচনী উত্তরপাড়া জামে মসজিদ’। ২০১৬ সালের ডিসেম্বর মাসের ৯ তারিখ শুক্রবারে স্থাপিত এ মসজিদটি পাড়ার প্রবাসিদের অর্থায়নে নির্মাণ করা হয়েছে।

গ্রামের উত্তরপাড়ায় ১৬ শতক জমির উপর মসজিদের অবস্থান হলেও মসজিদটি স্কয়ার সাইজের দৈর্ঘ্য-প্রস্থ ৬০ ফুট করে। মসজিদে এক সাথে প্রায় ৫শত জন মুসল্লী জামাতে নামায আদায় করতে পারবেন।

নান্দনিক এ মসজিদটির ডিজাইন করেছেন জালাল উদ্দিন। তিনি বর্তমানে সরকারি প্রতিষ্ঠান ‘বাংলাদেশ হাউজ বিল্ডিং ফাইন্যান্স করপোরেশন (বিএইচডিএফসি)’-তে ময়মনসিংহে কর্মরত আছেন।

তিনি জানান, চাকুরীর ফাঁকে ফাঁকে এই মসজিদের ডিজাইনটি করেছি। মসজিদ পরিচালনা কমিটির বর্তমান মুতাওয়াল্লী রহমত আলী জানান, আমাদের উত্তরপাড়ার এই মসজিদটির নির্মাণ ব্যয় প্রবাসিদের অর্থায়নেই হয়েছে। বর্তমানে একজন ইমাম, একজন মুয়াজ্জিন রয়েছে।

তিনি আরো জানান, মসজিদটি নির্মাণের ব্যয় ধরা হয়েছিল দুই কোটি টাকা, এ পর্যন্ত প্রায় এক কোটি ৬৫ লাখ টাকা খরচ করা হয়েছে। দ্বিতীয় তলার সামান্য কিছু কাজ বাকি আছে। মসজিদের বাহির ও ভেতর সম্পূর্ণ টাইলস দেয়া হয়েছে। ভেতরে প্রবেশের দরজা ও মেহরাব কাঠের কারুকার্য দ্বারা সৌন্দর্য বর্ধন করা হয়েছে। নিচতলায় নামাযের পাশাপাশি ওযু ও বাথরুম এবং দ্বিতীয় তলায় নামাযের ব্যবস্থার সাথে ইমাম ও মুয়াজ্জিনের থাকার রুম রাখা হয়েছে। মসজিদের দেয়ালের চতুর্দিকে বাতি রয়েছে। তাছাড়া মসজিদের ভেতরের সামনের দিকে থাকবে ফুলের বাগান ও ফোয়ারা বাগান করারও পরিকল্পনা গ্রহণ করা হয়েছে।
তিনি আরো জানান, নান্দনিক এই মসজিদটির নির্মাণের খবর প্রচার হওয়ার পর থেকে দেশের বিভিন্ন স্থান থেকে লোকজন এক নজর দেখতে আসছেন। ২০১৮ সালের ১১ মে শুক্রবার এই মসজিদটি উদ্বোধন করা হয়।

পহেলা বৈশাখে গরু চুরি, আটক ৪

0

পটুয়াখালীতে পহেলা বৈশাখে গরু চুরির অভিযোগে ৪ জনকে আটক করেছে পুলিশ। এসময় তাদের কাছ থেকে ৩টি গরু উদ্ধার করা হয়েছে।

রবিবার (১৪ এপ্রিল) দুপুরে বড়বিঘাই ইউনিয়নের ভয়াং খেয়াঘাট এলাকা থেকে তাদের আটক করা হয়।

আটককৃতরা হলেন নুরুল হক, বেল্লাল সিকদার, আলমগীর হোসেন ও জুয়েল।

পুলিশ ও স্থানীয়রা জানায়, রবিবার সকালে গরু চুরির পর ট্রলারে চড়ে নিয়ে বরগুনা জেলার তালতলী চার ব্যক্তি। ট্রলারটি পটুয়াখালী সদর উপজেলার ভয়াং খোয়াঘাট এলাকায় পৌঁছালে স্থানীয়রা সন্দেহ করে। পরে গরুসহ তাদের আটক করে স্থানীয়রা পুলিশে খবর দেয়।

সদর থানার ওসি মোস্তাফিজুর রহমান জানান, আটককৃতদের আদালতের মাধ্যমে জেল হাজতে পাঠানো হয়েছে।

পহেলা বৈশাখের রাতে বিএনপি নেতাকে কুপিয়ে হত্যা

0

পহেলা বৈশাখে বগুড়ায় বিএনপির এক নেতাকে কুপিয়ে হত্যা করেছে অজ্ঞাতরা। পথচারীরা তাকে উদ্ধার করে বগুড়া শহীদ জিয়াউর রহমান মেডিক্যাল কলেজ (শজিমেক) হাসপাতালে নিলে চিকিৎসক মৃত ঘোষণা করেন। পুলিশ সিসি ক্যামেরার ফুটেজ দেখে ঘাতকদের শনাক্তের চেষ্টা করছিলেন।

রবিবার (১৪ এপ্রিল) রাত সাড়ে ১০টার দিকে ৫-৭ জনের দুর্বৃত্ত উপ-শহর বাজার এলাকায় তাকে কুপিয়ে ফেলে যায়।

নিহত বিএনপি নেতার নাম মাহবুব আলম শাহীন (৫৫)। তিনি বগুড়া সদর উপজেলা বিএনপির সাধারণ সম্পাদক ও পেশায় আইনজীবী। তার বাড়ি উপশহরের ধরমপুর এলাকায় ও তার পরিবহন ব্যবসা ছিল।

স্থানীয়রা জানায়, গতকাল রাত ১১টার দিকে শহরের নিশিন্দারার হাউজিং এস্টেট এলাকার একটি শরীর চর্চা কেন্দ্র থেকে বেরিয়ে বাসায় ফিরছিলেন শাহীন। পথে উপশহর বাজার এলাকায় ১০তলা বিল্ডিংয়ের সামনে পৌঁছলে ৪-৫ জন দুর্বৃত্ত তাকে ধারালো অস্ত্র দিয়ে কুপিয়ে পালিয়ে যায়।

পরে স্থানীয়রা তাকে বগুড়া শহীদ জিয়াউর রহমান মেডিকেল কলেজ (শজিমেক) হাসপাতালে নিয়ে গেলে কর্তব্যরত চিকিৎসক জানান অতিরিক্ত রক্তক্ষরণে শাহীন আগেই মারা গেছেন।

খবর শুনে জেলা পুলিশ সুপার আলী আশরাফসহ ঊর্ধ্বতন পুলিশ কর্মকর্তারা ঘটনাস্থল পরিদর্শন ও হাসপাতালে লাশ দেখতে যান।

হামলার পর ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছেন বগুড়া জেলা পুলিশ সুপার আলী আশরাফ ভূঁঞা ও বগুড়া সদর সার্কেলের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার সনাতন চক্রবর্তী। তারা জানান, এই হত্যাকাণ্ডের কারণ প্রাথমিকভাবে বলা যাচ্ছে না, তবে পুলিশ বিষয়টি খতিয়ে দেখছে।

এ ব্যাপারে অতিরিক্ত পুলিশ সুপার সনাতন চক্রবর্তী বলেন, পূর্ব শত্রুতার জেরে এই হত্যাকাণ্ডের ঘটনা ঘটে থাকতে পারে। বিষয়টি তদন্ত করে দেখা হচ্ছে।

বিএনপি নেতা শাহীনের লাশ ময়নাতদন্তের জন্য শহীদ জিয়াউর রহমান মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের মর্গে রয়েছে বলেও জানান পুলিশের ওই কর্মকর্তা।

সদর উপজেলা বিএনপির সাধারণ সম্পাদক মাহবুব আলম শাহীন হত্যার খবর পেয়ে জেলা বিএনপির সভাপতি সাইফুল ইসলাম ও সাধারণ সম্পাদক জয়নাল আবেদীন চাঁন শজিমেক হাসপাতালে যান। তার এ হত্যাকাণ্ডের তীব্র নিন্দা ও ক্ষোভ প্রকাশ করে অবিলম্বে ঘাতকদের চিহ্নিত এবং তাদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি দাবি করেন। অন্যথায় তারা আন্দোলন গড়ে তুলবেন বলে জানিয়েছেন।

নীলফামারীতে বিদ্যুৎস্পৃষ্ট হয়ে মাদরাসা ছাত্রের মৃত্যু

0

নীলফামারীর সৈয়দপুর উপজেলার বাঙালিপুর ইউনিয়নে বিদ্যুৎস্পৃষ্ট হয়ে রাকিবুল ইসলাম (১৪) নামে একজন মাদরাসা ছাত্রের মৃত্যু হয়েছে।

রোববার (১৪ এপ্রিল) দুপুরে ইউনিয়নের নদীর পাড় খড়খড়িয়াপাড়া গ্রামে এ ঘটনা ঘটে।

নিহত রাকিবুল ওই ইউনিয়নের নদীরপাড় খড়খড়িয়া পাড়া গ্রামের আলতাফ হোসেন ছেলে ও সোনাখুলী দাখিল মাদরাসার নবম শ্রেণির ছাত্র।

সৈয়দপুর থানার ওসি শাহাজান পাশা এই তথ্য নিশ্চিত করেন।

পুলিশ ও স্থানীয়রা জানায়, নিজ বাড়ির ঘর মেরামতের কাজ করেছিলেন আলতাফ। এসময় তাকে সহযোগিতা করছিল তার ছেলে রাকিবুল। এক পর্যায়ে অসাবধানতাবসত ছেড়া বৈদ্যুতিক তারে বিদ্যুৎস্পৃষ্ট হয়ে ঘটনাস্থলে তার মৃত্যু হয়।

সাভারে হত্যা করে গুমের তিনদিন পর স্বেচ্ছাসেবক লীগ নেতার ভাসমান লাশ উদ্ধার

0

সাভারে হত্যা করে গুমের তিনদিন পর স্বেচ্ছাসেবক লীগ নেতার ভাসমান লাশ উদ্ধার

সাভার প্রতিনিধি:- মাদক ব্যবসায় বাধা দেয়ায় সাভারের রাজফুলবাড়িয়া এলাকায় সন্ত্রাসীদের হামলায় নিখোজের তিনদিন পর স্বেচ্ছাসেবক লীগ নেতা হুমায়ন কবির সরকারের লাশ উদ্ধার করেছে পুলিশ।

রবিবার সকালে তেঁতুলঝোড়া ইউনিয়নের রাজফুলবাড়িয়া পানপাড়া এলাকায় বংশী নদী থেকে লাশটি উদ্ধার করে সাভার মডেল থানা পুলিশ।
এর আগে মাদকের বিরুদ্ধে প্রতিবাদ করায় গত বৃহস্পতিবার সন্ধায় তেঁতুলঝোড়া ইউনিয়ন স্বেচ্ছাসেবক লীগের সহ সভাপতি মোঃ হুমায়ন কবির সরকারকে বাসা থেকে ডেকে নিয়ে পানপাড়া বংশী নদীর পারে বালির মাঠে নিয়ে যায় এলাকার চিহিৃত সন্ত্রাসী ও মাদক ব্যাবসায়ী পারভেজ বাহিনীর লোকজন।

পরে সেখানে মাদক ব্যাবসায়ী পারভেজ বাহিনীর ২০/২৫ জনের একটি সন্ত্রাসী দল তাকে রামদা দিয়ে এলোপাথারী ভাবে কুপিয়ে হত্যা করে। পরে সন্ত্রাসীরা লাশটি একটি ট্রলারে করে বংশী নদীতে গুমকরে রাখে।

ট্যানারী পুলিশ ফাড়ির ওসি গোলাম নবী বলেন, মাদকের বিরুদ্ধে প্রতিবাদ করায় সন্ত্রাসী পাভেজ বাহিনীর লোকজন তাকে হত্যা করে লাশটি বংশী নদীতে ফেলে দেয়।

পরে আজ রবিবার সকালে তিন দিন পর বংশী নদী থেকে লাশটি উদ্ধার করা হয়েছে।
তবে এ ঘটনায় এর আগে ট্রলারের মাঝিসহ দুজনকে আটক করেছিল পুলিশ।

দায় স্বীকার করে জবানবন্দি দিচ্ছেন দুই আসামি

0

ফেনীর সোনাগাজীর মাদ্রাসাছাত্রী নুসরাত জাহান রাফিকে আগুনে পুড়িয়ে হত্যার দায় স্বীকার করে জবানবন্দি দিচ্ছেন মামলার অন্যতম প্রধান দুই আসামি। এই দুই আসামি হলেন নুর উদ্দিন ও শাহাদাত হোসেন।

আজ রোববার বেলা সাড়ে তিনটার দিকে এই দুই আসামিকে জ্যেষ্ঠ বিচারিক হাকিম জাকির হোসাইনের আদালতে হাজির করা হয়। সেখানে পর্যায়ক্রমে দুই আসামি স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দেবেন বলে জানা গেছে।

৬ এপ্রিল আলিম পরীক্ষার্থী রাফিকে সোনাগাজী ইসলামিয়া মাদ্রাসা ক্যাম্পাসে গায়ে কেরোসিন ঢেলে আগুন ধরিয়ে দেওয়া হয়। ১০ এপ্রিল তাঁর মৃত্যু হয়। এ ঘটনায় এখন পর্যন্ত ১৩ জনকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে।

শবে বরাত কবে সিদ্ধান্ত হয়নি, ফের বৈঠক ১৭ এপ্রিল

0

পবিত্র শবে বরাত পালিত হবে ২১ এপ্রিল। ইসলামিক ফাউন্ডেশনের পক্ষ থেকে গত ৬ এপ্রিল এ তথ্য জানানো হয়। তবে এই তারিখ নিয়ে বিভ্রান্তি দেখা যায়। সেটার অবসান ঘটাতে আগামী ১৭ এপ্রিল ফের বৈঠক হবে।

শনিবার (১৩ এপ্রিল) দুপুরে ইসলামিক ফাউন্ডেশনের বায়তুল মোকাররম সভাকক্ষে জাতীয় চাঁদ দেখা কমিটির এক বৈঠকে এ সিদ্ধান্ত হয়।

এদিন ধর্ম প্রতিমন্ত্রী ও জাতীয় চাঁদ দেখা কমিটির সভাপতি শেখ মো. আবদুল্লাহর সভাপতিত্বে জাতীয় চাঁদ দেখা কমিটির তিন ঘণ্টার বৈঠকেও কোনো সিদ্ধান্ত না আসায় আবারও বৈঠকের ঘোষণা দেওয়া হয়।

জাতীয় চাঁদ দেখা কমিটির পক্ষ থেকে জানানো হয়, পবিত্র শবে বরাতের তারিখ নিয়ে বিভ্রান্তির প্রেক্ষাপটে শনিবার ১০ সদস্যের মুফতি আব্দুল মালেকের নেতৃত্বে একটি কমিটি গঠন করে দেওয়া হয়েছে। এই কমিটি আগামী ১৭ এপ্রিল বৈঠক করে শবে বরাতের তারিখ নির্ধারণ করবে।

গত ৬ এপ্রিল বাংলাদেশের আকাশে হিজরি শাবান মাসের চাঁদ দেখা যায়নি বলে ঘোষণা দেয় জাতীয় চাঁদ দেখা কমিটি। ওইদিন সন্ধ্যায় ইসলামিক ফাউন্ডেশন বায়তুল মোকাররম সভাকক্ষে সভা শেষে ধর্ম প্রতিমন্ত্রী শেখ মোহাম্মদ আব্দুল্লাহ ২১ এপ্রিল দিনগত রাতে শবে বরাত পালন করা হবে বলে জানান।

জাতীয় চাঁদ দেখা কমিটির সিদ্ধান্ত অনুযায়ী শবে বরাতের তারিখ ২১ এপ্রিল নির্ধারণ করা হলে তা ভিন্ন দাবি তোলে মজলিসু রুইয়াতিল হিলাল নামে একটি সংগঠন। সংগঠনটির দাবি ৬ এপ্রিল বাংলাদেশের আকাশে শাবান মাসের চাঁদ দেখা গেছে। তাই ২০ এপ্রিল তারা শবে বরাত পালনের দাবি জানান।

নান্নু মুন্সির নেতৃত্বে অর্ধশতাধিক নেতা-কর্মীর খেলাফত আন্দোলনে যোগদান!

0

ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশের সাবেক কেন্দ্রীয় নেতা, নারায়ানগঞ্জ জেলা সভাপতি ও অনৈসলামিক কার্যক্রম প্রতিরোধ কমিটির আমীর আলহাজ আতিকুর রহমান নান্নু মুন্সির নেতৃত্বে অর্ধশতাধিক নেতা-কর্মী হযরত হাফেজ্জী হুজুর রহ. এর নীতি-আদর্শে অনুপ্রানিত হয়ে তাঁর প্রতিষ্ঠিত বাংলাদেশ খেলাফত আন্দোলনে যোগ দিয়েছেন। আজ শনিবার বাদ যোহর বাংলাদেশ খেলাফত আন্দোলন আমীরে শরীয়ত মাওলানা শাহ আতাউল্লাহ হাফেজ্জীর কামরাঙ্গীরচরস্থ কার্যালয়ে খেলাফত আন্দোলনের সদস্য ফরম পূরণ করেন।

যোগদানকারী নেতৃবৃন্দ হলেন ইসলামী আন্দোলন নারায়ানগঞ্জ জেলা সাবেক সাধারন সম্পাদক মাওলানা শেখ সাদী, সাংগঠনিক সম্পাদক মুসফিকুর রহমান জামাল, মাওলানা এমদাদুল হক কাসেমী, মাওলানা মজিবুর রহমান, মাওলানা মাহদী হাসান ভূঁইয়া, মাওলানা সিহাবুদ্দিন কাসেমী,মাওলানা ওবাইদুর রহমান, হাসানুজ্জামান এম এ সহ বিভিন্ন সংগঠনের অর্ধশতাধিক নেতা-কর্মী ও ওলামায়ে কেরাম। যোগদান অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন, খেলাফত আন্দোলনের মহাসচিব মাওলানা হাবীবুল্লাহ মিয়াজী, নায়েবে আমীর মাওলানা মুজীবুর রহমান হামিদী, সাংগঠনিক সম্পাদক মুফতি সুলতান মহিউদ্দীন, মাওলানা সানাউল্লাহ, মাওলানা সাইফুল ইসলাম সুনামগঞ্জী ও মাওলানা মাসুদুর রহমান প্রমূখ।

সভায় বাংলাদেশ খেলাফত আন্দোলন আমীরে শরীয়ত মাওলানা শাহ আতাউল্লাহ হাফেজ্জী ইসলামী হুকুমত প্রতিষ্ঠায় সকলকে ঐক্যবদ্ধ হওয়ার আহŸান জানিয়ে বলেছেন, আমাদের অনৈকের কারনে ইসলামের শত্রæরা বারবার ইসলামের উপর আঘাত করে চলছে। বিধর্মীদের আমদানী করা মানবরচিত তন্ত্র-মন্ত্র প্রতিষ্ঠায় সরকার ও বিরোধী দল ব্যস্ত। কোন মানবরচিত তন্ত্রমন্ত্র, ও শাসন ব্যবস্থায় দেশে কখনোই শান্তি আসতে পারে না। একমাত্র কুরআন-সুন্নাহর অনুকরণে ইসলামী রাষ্ট্র প্রতিষ্ঠার মাধ্যমেই মানবতার কল্যাণ ও শান্তি আসতে পারে। তিনি ইসলামী হুকুমত প্রতিষ্ঠায় সকলকে ঐক্যবদ্ধ হওয়ার আহবান জানান।

খেলাফত আন্দোলনে যোগদান প্রসঙ্গে আলহাজ আতিকুর রহমান নান্নু মুন্সি বলেন, বাংলাদেশে ইসলামী হুকুমত প্রতিষ্ঠার স্বপ্নদ্রষ্টা হলেন হযরত হাফেজ্জী হুজুর রহ.। আর ইসলামী দলগুলোর মূল দল হল বাংলাদেশ খেলাফত আন্দোলন। আমি মূল দলে আসতে পেরে নিজেকে ধন্য মনে করছি। ইসলামী হুকুমত প্রতিষ্ঠায় খেলাফত আন্দোলনের বিকল্প নেই।

দাওরায়ে হাদীসের পরীক্ষা বাতিল

0

প্রশ্নফাঁসের অভিযোগ ওঠায় আল হাইয়াতুল উলইয়া লিল জামিয়াতিল কওমিয়া বাংলাদেশের অধীনে চলমান দাওরায়ে হাদীসের (তাকমিল জামাত) পরীক্ষা বাতিল করেছে কর্তৃপক্ষ।

আজ (শনিবার) রাজধানীর সকাল ৭টায় আল হাইয়াতুল উলইয়া লিল জামিয়াতিল কওমিয়া বাংলাদেশের কো চেয়ারম্যান আল্লামা আশরাফ আলীর সভাপতিত্বে ঢাকার মতিঝিলে সংস্থাটির কার্যালয়ে একটি জরুরি বৈঠকে দাওরায়ে হাদীসের পরীক্ষা বাতিলের সিদ্ধান্ত হয় বলে বৈঠকে উপস্থিত একাধিক সূত্রে নিশ্চিত হয়েছে আওয়ার ইসলাম টোয়েন্টিফোর ডটকম।

বৈঠকে উপস্থিত হাইয়াতুল উলইয়ার সদস্য মাওলানা মুসলেহুদ্দিন রাজু জানান, ইতিপূর্বে দাওরায়ে হাদীসের সকল বিষয়ের পরীক্ষা নতুন করে অনুষ্ঠিত হবে। সংশ্লিষ্ট বিষয়ে হাইয়ার বৈঠকে গৃহীহ সিদ্ধান্ত ও পরীক্ষার নতুন সময়সূচী যথাসময়ে প্রেস বিজ্ঞপ্তির মাধ্যমে জানানো হবে।

বৈঠকে উপস্থিত আছেন, আল হাইয়াতুল উলইয়া লিল জামিয়াতিল কওমিয়া বাংলাদেশের মুফতি মুহাম্মদ ওয়াক্কাস, আল্লামা নুর হোসাইন কাসেমী, মুফতি রুহুল আমিন, মুফতি আরশাদ রাহমানী, মাওলানা আব্দুল কুদ্দুস, মাওলানা শামসুদ্দিন জিয়া, মুফতি ফয়জুল্লাহ, মাওলানা মাহফুজুল হক, মাওলানা সাজিদুর রহমান, মাওলানা বাহাউদ্দিন জাকারিয়া, মুফতি মোহাম্মদ আলী, মুফতি এনামুল হক, মুফতি নুরুল আমিন, মুফতি জসিমউদ্দিন, মাওলানা নুরুল হুদা ফয়েজী প্রমুখ।

কোনো মুসলমান মঙ্গল শোভাযাত্রায় অংশগ্রহণ করতে পারেন না: আল্লামা শফী

0

পহেলা বৈশাখ উদযাপনের অন্যতম অনুসঙ্গ হিসেবে মঙ্গল শোভাযাত্রার যে আয়োজন করা হয়, তা শরীয়ত সমর্থন করে না। কোন মুসলমান মঙ্গল শোভাযাত্রায় অংশগ্রহণ করতে পারেন না।

গতকাল শুক্রবার (১২ এপ্রিল) সন্ধ্যায় জামেয়া দারুল উলূম হাটহাজারীর মহাপরিচালক, হেফাজতে ইসলাম বাংলাদেশ এর আমির আল্লামা শাহ আহমদ শফীর পাঠানো এক বিবৃতিতে তিনি একথা জানান।

আল্লামা আহমদ শফী বলেন, ষোড়শ শতকে মোঘল সম্রাট আকবরের সময়ে বর্তমানের যে বাংলা বর্ষপঞ্জি তৈরি হয় তা ফসল রোপণ এবং কর আদায় সহজ করার উদ্দেশ্যেই করা হয়। হালখাতা, পিঠা-পুলি বানানোর মাধ্যমে পহেলা বৈশাখ যেভাবে উদযাপন হয়ে আসছিলো তাতে নতুন নতুন যেসব আয়োজন যোগ হচ্ছে তাতে যেমন ধর্মীয় বিধানাবলীর বিপরীতে অবস্থান নেয়া হচ্ছে, তদ্রূপ আমাদের সংস্কৃতি হুমকিতে পড়ছে। কারণ জাতীয়তার চেয়ে জাতিসত্তার পরিচয় বড়। আর আমরা লক্ষ্য করছি এসব আয়োজনে ধীরে ধীরে যেভাবে বিজাতীয় সংস্কৃতির অনুপ্রবেশ ঘটছে, যা বাংলাদেশি মুসলমানদের জন্য কখনোই কল্যাণকর হবে না।

তিনি আরো বলেন, মানুষের জীবনের কল্যাণ ও মঙ্গল-অমঙ্গল সবকিছুই আমাদের সৃষ্টিকর্তা মহান আল্লাহ তায়ালার হুকুমে হয়। পৃথিবীর সব বিশ্বাসীরা এটাই বিশ্বাস করেন। কোন মূর্তি, ভাস্কর্য, পোস্টার, ফেস্টুন ও মুখোশে মঙ্গল-অমঙ্গল থাকতে পারে না। বাঘ, কুমির, বানর, পেঁচা, কাকাতুয়া, ময়ূর, দোয়েলসহ বিভিন্ন পশুপাখি মঙ্গল আনতে পারে না।

এসব বিশ্বাস যেমন ইসলামী শরীয়তবিরোধী চেতনা, তদ্রূপ এমন আধুনিক সময়ে মূর্তি-ভাস্কর্য ও জীবজন্তুর ছবিতে মঙ্গল-অমঙ্গল কামনা করা একটি কুসংস্কারচ্ছন্ন ধ্যান-ধারণা।

মঙ্গল শোভাযাত্রা বিষয়ে প্রশ্ন তুলে তিনি বলেন, প্রতিবছর পহেলা বৈশাখের সকালে বাদ্যযন্ত্রের তালে নানা ধরণের বাঁশ-কাগজের তৈরি মূর্তি, পেঁচার আকৃতি ও মুখোশ হাতে মঙ্গল শোভাযাত্রা বের হয়। ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের চারুকলা ইন্সটিটিউট থেকে মাত্র ২৮বছর আগ থেকে শুরু হওয়া মঙ্গল শোভাযাত্রা কিভাবে সার্বজনীন বাঙালি উৎসব ও সংস্কৃতি হতে পারে?

তরুণ-তরুণীদের উদ্দেশ্যে আল্লামা আহমদ শফী বলেন, তোমরা যারা আবেগের বশবর্তী হয়ে, ভুল ধারণায় প্ররোচিত হয়ে কিংবা বয়সের কারণে মঙ্গল শোভাযাত্রা ও গানবাদ্যের অনুষ্ঠানে অংশগ্রহণ করো তোমরা তা থেকে নিজেদের বিরত রাখো। যৌবনকাল আল্লাহ তাআলার প্রদত্ত সবচেয়ে বড় নেয়ামত। তোমাদের মূল্যবান সম্পদ ‘তারুণ্য’ যিনি দান করেছেন তাঁর ইবাদতে ও তাঁর সন্তুষ্টিতে তা কাজ লাগাও। জীবন সুন্দর হবে, আত্মিক প্রশান্তি লাভ করবে।

আল্লামা আহমদ শফী সর্বস্তরের জনগণের উদ্দেশ্যে বলেন, সাম্প্রতিক সময়ে আমাদের মাতৃভূমি বাংলাদেশে যেভাবে অগ্নিকাণ্ড, সড়ক দুর্ঘটনা, ধর্ষণ ও পাপাচার বেড়ে চলছে এর থেকে পরিত্রাণ পেতে আমাদের উচিত মহান আল্লাহ তাআলার কাছে তওবা ও ইস্তেগফারের মাধ্যমে ক্ষমা প্রার্থনা করা। তাঁর ইবাদাতে মগ্ন হওয়া। নিজেদের আত্মিক পরিশুদ্ধতা অর্জনে চেষ্টা-সাধনা করা। কারণ নৈতিক ও আধ্যাত্মিক উন্নতি ও পরিশুদ্ধতা ছাড়া শুধু মানবরচিত আইনের মাধ্যমে আল্লাহ তাআলার গজব ও পাপাচার থেকে মুক্তি পাওয়া সম্ভব না।

Weather

Dinajpur
clear sky
39.1 ° C
39.1 °
39.1 °
25 %
1.2kmh
0 %
Thu
40 °
Fri
38 °
Sat
41 °
Sun
40 °
Mon
41 °