24.6 C
Dinajpur
Thursday, May 23, 2019
Home Blog

হাসপাতালে দিয়ার পাশে শোভন-রাব্বানী

0

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের মধুর ক্যান্টিনের ঘটনায় বহিষ্কার হয়ে আত্মহত্যার চেষ্টাকারী ছাত্রলীগের কেন্দ্রীয় কমিটির সাবেক সদস্য জারিন দিয়াকে দেখতে হাসপাতালে গিয়েছিলেন সংগঠনটির কেন্দ্রীয় সভাপতি রেজওয়ানুল হক চৌধুরী শোভন ও সাধারণ সম্পাদক গোলাম রাব্বানী।

বুধবার রাতে রাজধানীর স্কয়ার হাসপাতালে চিকিৎসাধীন নেত্রীকে তারা দেখতে যান। এ সময় দিয়ার বিরুদ্ধে নেয়া বহিষ্কারাদেশ প্রত্যাহারের বিবেচনা করবেন বলে আশ্বাস দেন।

গোলাম রাব্বানী বলেন, দিয়া তার ভুল বুঝতে পেরেছে। সে তার ফেসবুক স্ট্যাটাসে এর জন্য দুঃখ প্রকাশ করেছে। আর মানবিক দিক বিবেচনায় নিয়ে আমরা তার বহিষ্কারাদেশ বিবেচনা করব।

গত সোমবার দিবাগত রাতে এই নেত্রী বহিষ্কার হওয়ার ক্ষোভ থেকে স্লিপিং পিল খেয়ে আত্মহত্যার চেষ্টা চালান। রাত ২টার দিকে ল্যাবএইড হাসপাতাল থেকে তাকে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়।

পরের দিন তাকে হাসপাতাল থেকে রিলিজ দেয়া হয়। একদিন সুস্থ থাকলেও বুধবার জারিন দিয়া আবার স্ট্রোক করে স্কয়ার হাসপাতালে ভর্তি হন।

এর আগে, কেন্দ্রীয় কমিটিতে জায়গা না পেয়ে ছাত্রলীগের এ নেত্রী শোভন-রাব্বানীর বিরুদ্ধে বিস্ফোরক মন্তব্য করেছিলেন।

বরিশাল বিশ্ববিদ্যালয়ের সেই শিক্ষার্থী বহিষ্কার

0

বরিশাল বিশ্ববিদ্যালয়ের ফিন্যান্স অ্যান্ড ব্যাংকিং বিভাগের শিক্ষার্থী সাজ্জাত হোসেন ডালিমকে কুপিয়ে আহত করার ঘটনায় মৃত্তিকা ও পরিবেশ বিজ্ঞান বিভাগের শিক্ষার্থী প্রাঞ্জল রায়কে সাময়িক বহিষ্কার করেছে বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন।

বৃহস্পতিবার দুপুরে প্রাঞ্জল রায়কে সাময়িক বহিষ্কার করা হয়। এছাড়া শিক্ষার্থী সাজ্জাত হোসেন ডালিমের ওপর হামলার ঘটনায় তিন সদস্যের তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়েছে।

বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টর সুব্রত কুমার দাস বলেন, শিক্ষার্থীর ওপর হামলার ঘটনায় প্রাঞ্জল রায়কে সাময়িক বহিষ্কার করা হয়েছে। পাশিপাশি হামলার ঘটনা তদন্তে ইংরেজি বিভাগের সহকারী অধ্যাপক মো. আরিফ হোসেনের নেতৃত্বে তিন সদস্যের তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়েছে। পাঁচ কার্যদিবসের মধ্যে কমিটিকে প্রতিবেদন দিতে বলা হয়েছে।

বিশ্ববিদ্যালয় ক্যাম্পাস সূত্রে জানা যায়, মঙ্গলবার রাতে বঙ্গবন্ধু হলে টাকা ধার নেয়াকে কেন্দ্র করে ডালিমের সঙ্গে প্রাঞ্জল রায়, আবির ও রাষ্ট্রবিজ্ঞান বিভাগের তাসহাদুল ইসলাম রনির বিরোধ দেখা দেয়। একপর্যায়ে প্রাঞ্জল রায় পানির বোতল ভেঙে সাজ্জাত হোসেন ডালিমের পেটে ঢুকিয়ে দেয়। পরে সহপাঠীরা ডালিমকে উদ্ধার করে বরিশাল মেডিকেলে পাঠায় এবং প্রাঞ্জল ও রনিকে আটক করে পুলিশে সোপর্দ করে।

বরিশাল মেট্রোপলিটন পুলিশের মুখপাত্র এবং গোয়েন্দা বিভাগের সহকারী কমিশনার নাসির উদ্দিন মল্লিক বলেন, হামলার ঘটনায় আহতের স্বজন মাহমুদুর রহমান বাদী হয়ে মেট্রোপলিটন বন্দর থানায় একটি মামলা করেন। পরে প্রাঞ্জল ও রনিকে ওই ঘটনায় দায়ের হওয়া মামলায় গ্রেফতার দেখিয়ে তাদের আদালতে সোপর্দ করা হয়। আদালত তাদের কারাগারে পাঠান।

পাবনায় অসহায় কৃষকদের ধান কেটে দিল ছাত্রলীগ

0

পাবনা জেলা ছাত্রলীগের সভাপতি শিবলী সাদিক জানান, কৃষকদের ধান কাটতে সহযোগিতা করার জন্য নির্দেশ দিয়েছেন ছাত্রলীগের কেন্দ্রীয় সভাপতি রেজওয়ানুল হক চৌধুরী শোভন ও সাধারণ সম্পাদক গোলাম রাব্বানী। তারপর থেকেই পাবনার ছাত্রলীগ নেতাকর্মীরা আন্তরিকতার সঙ্গে এগিয়ে এসেছেন।

তিনি জানান, বৃহস্পতিবার তিনটি টিমে ৬০ জনকে নিয়ে তারা আনন্দের সঙ্গে সদর উপজেলার পাটকিয়াবাড়ি গ্রামে বিভিন্ন কৃষকের ধান কেটে দেন। শুক্রবার (২৪ মে) এ সংখ্যা আরও বাড়বে। এদিন পৌর ছাত্রলীগ ও সদর উপজেলা ছাত্রলীগের নেতাকর্মীরা ধান কাটায় অংশ নেবেন। ধান বিপণন কাজেও তারা সহযোগিতা করবেন।

এদিকে ধান কাটা নিয়ে দুশ্চিন্তায় থাকা কৃষক সুখ চাঁদ তার ধানক্ষেতে কাস্তে নিয়ে ছাত্রলীগের নেতাকর্মীরা হাজির হলে অবাক হয়ে যান। তিনি বলেন, ‘ধান কাটা লিয়ে মহাবিপদে ছিলেম। ছাত্তররা আসে আমাক মুহা বিপদ থিকে বাঁচালে। আমি এ্যাহন সুখী। শেখের বিটির (প্রধানমন্ত্রী) জন্য দুয়া করি।’

পাবনায় অসহায় কৃষকদের ধান কেটে দিল ছাত্রলীগ

একই রকম অভিব্যক্তি প্রকাশ করেন চাঁদ আলী আর ফুরকান। ফুরকান আলী বললেন, ‘ট্যাহা দিলিও লেবার মিলতিচে না। আজ (বৃহস্পতিবার) আমি সাড়ে ছয়শ ট্যাহা দিয়ি মাত্তর এটা লেবার পাইছিলাম।’

জেলা কৃষকলীগের সহ-সভাপতি হাবিবুর রহমান হাবিব জানান, কৃষকের দুর্দিনে সব সময় আওয়ামী লীগ সরকার পাশে থাকে। আর কৃষকবান্ধব হিসেবে পাবনার ছাত্রলীগ নেতাকর্মীরা কৃষকের দুর্দিনে পাশে দাঁড়িয়েছে। এতে ছাত্রলীগ নেতাকর্মীদের প্রতি জনতার শ্রদ্ধাবোধ আরও বাড়বে।

PABNA02

বাংলাদেশ ফার্মারস অ্যাসোসিয়েশনের (বিএফএ) কেন্দ্রীয় সভাপতি ও পাবনার শীর্ষস্থানীয় কৃষক আলহাজ্ব শাহজাহান আলী বাদশা বলেন, এটা প্রশংসনীয় কাজ। তবে এটা তাৎক্ষণিক একটা সমাধান। সুদুরপ্রসারী ফলাফলের জন্য কৃষকের আর্থিক প্রণোদনা ও বিপণন সুবিধা বাড়াতে হবে।

টানা ৬ ঘণ্টা কৃষকের ধান কাটলেন ছাত্রলীগ সভাপতি শোভন

0

এবার একসঙ্গে কৃষকদের ধান কাটতে মাঠে নামলেন ছাত্রলীগের কেন্দ্রীয় কমিটির সভাপতি মো. রেজওয়ানুল হক চৌধুরী শোভন ও সাধারণ সম্পাদক গোলাম রাব্বানী। বৃহস্পতিবার মুন্সীগঞ্জে এক কৃষকের ক্ষেতে নেতাকর্মীদের সঙ্গে নিয়ে ধান কাটতে নামেন তারা দুজন।

স্থানীয় সূত্র জানায়, মুন্সীগঞ্জ জেলা ছাত্রলীগের উদ্যোগে সিরাজদিখান উপজেলার কুচিয়ামোড়া চড়ে হাসেম বেপারীর জমির ধান কেটে সহযোগিতা করেন ছাত্রলীগের নেতাকর্মীরা।

Shovon

বৃহস্পতিবার সকাল ৯টা থেকে মুন্সীগঞ্জ জেলা ছাত্রলীগের সভাপতি ফয়সাল মৃধা ও সাধারণ সম্পাদক ফয়েজ আহমেদ পাভেলের নেতৃত্বে কৃষক হাসেম বেপারীর ধান কাটা শুরু হয়। বেলা ১১টার দিকে ছাত্রলীগের কেন্দ্রীয় কমিটির সভাপতি মো. রেজওয়ানুল হক চৌধুরী শোভন ও সাংগঠনিক সম্পাদক সাবরিনা ইতিসহ কেন্দ্রীয় কমিটির নেতারা ধান কাটায় যোগ দেন। বিকেল ৪টার দিকে ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক গোলাম রাব্বানী ও সহ-সম্পাদক রনী চৌধুরী ধান কাটায় অংশ নেন। প্রায় ছয় ঘণ্টা ধরে মাঠে ধান কাটেন তারা।

Shovon

এছাড়া কৃষকের ধান কাটায় অংশ নিয়েছেন সিরাজদিখান উপজেলা ছাত্রলীগের সভাপতি সৈকত মাহমুদ, সাধারণ সম্পাদক পারভেজ চোকদার পাপ্পু, শ্রীনগর উপজেলা ছাত্রলীগের সভাপতি লিজু আহমেদ, সাধারণ সম্পাদক আবির আহাম্মেদ সৈকত, লৌহজং উপজেলা ছাত্রলীগের সভাপতি রাজিব বাসার, সাধারণ সম্পাদক শেখ শাওন, শ্রীনগর সরকারি কলেজ শাখা ছাত্রলীগের সভাপতি আরিফুল ইসলাম রাব্বী ও সাধারণ সম্পাদক জহিরুল ইসলাম লিমন প্রমুখ।

Shovon

ছাত্রলীগের নেতাকর্মীরা জানান, ছাত্রলীগ সভাপতি এবং সাধারণ সম্পাদক নেতাকর্মীদের নিয়ে কৃষকের মাঠের ধান কাটায় সহযোগিতা করায় কৃষকদের উপকার হয়েছে। এ কাজটি কৃষকদের মধ্যে উৎসাহ-উদ্দীপনা বাড়িয়ে দিয়েছে।

ধান কাটার বিষয়টি নিয়ে ফেসবুকে কেউ কেউ সমালোচনা করছেন বিষয়টি কীভাবে নিচ্ছেন ছাত্রলীগের নেতাকর্মীরা এমন প্রশ্নের জবাবে ছাত্রলীগের কয়েকজন নেতা জানান, আপনি ভালো কাজ করলেও সমালোচকরা সমালোচনা খুঁজে বের করবে। আমরা এখানে এসেছি আমাদের সংগঠনের নেতাকর্মীদের উৎসাহিত করতে। যাতে কৃষকদের সহায়তা করে তারা। আমরা কৃষকদের সঙ্গে রয়েছি। এ বিষয়ে কে কি বললো তা দেখার বিষয় নয়, আমরা কৃষকদের সহযোগিতা করছি।

Shovon

এর আগে বুধবার ছাত্রলীগের কেন্দ্রীয় কমিটির সাধারণ সম্পাদক গোলাম রাব্বানী সাভারে এক কৃষকের ক্ষেতের ধান কেটে দেন। বিষয়টি নিয়ে কেউ কেউ সমালোচনা করেছেন আবার কেউ কেউ ছাত্রলীগের প্রশংসা করেছেন।

রাইস মিলের আড়ালে নিম্নমানের তেল সাবান জুস উৎপাদন

0

কুড়িগ্রামের ফুলবাড়ী উপজেলায় একটি রাইস মিলের আড়ালে ভেজাল ও নিম্নমানের ভোজ্য পণ্য সামগ্রীর কারখানার সন্ধান পাওয়া গেছে। দীর্ঘদিন ধরে প্রশাসনের চোখ ফাঁকি দিয়ে অবৈধভাবে বিএসটিআই’র অনুমোদন ছাড়াই সেখানে সয়াবিন তেল, বল সাবান, জুস এবং চানাচুর উৎপাদন করা হচ্ছে।

ওই রাইস মিলের মালিক উপজেলার ভাঙ্গামোড় ইউনিয়নের রাবাইতারী গ্রামের জোসনার মোড় এলাকার বাসিন্দা মৃত নুরুল ইসলামের ছেলে সাবেক সেনা কর্মকর্তা হাবিবুর রহমান। তিনি ১৯৯৭ সালে বাংলাদেশ সেনাবাহিনীর ল্যান্স কর্পোরাল পদ থেকে অবসর গ্রহণ করেন। অবসরের পর হতে তিনি মেসার্স আপেল চাল মিল নামে চালের ব্যবসা শুরু করেন। পরে তিনি ২০১৬ সালে মেসার্স আপেল অয়েল মিল নামে ঘোড়া মার্কায় আপেল সরিষার তেল উৎপাদনের জন্য বাংলাদেশ স্ট্যান্ডার্ডস অ্যান্ড টেস্টিং ইনস্টিটিউশনের (বিএসটিআই) নিকট লাইসেন্স নেন। লাইসেন্স নেয়ার পর থেকে তিনি প্রশাসনের চোখ ফাঁকি দিয়ে নিম্নমানের ভেজাল ভোজ্যপণ্য উৎপাদন করে বাজারজাত করে লাখ লাখ টাকা আয় করছেন।

অনুসন্ধানে দেখা যায়, মিলের মালিক চাল কলের ভেতরে অস্বাস্থ্যকর এবং স্যাঁতস্যাঁতে পরিবেশে বিভিন্ন কোম্পানির স্টিকার ও লোগো ব্যবহার করে ঘোড়া মার্কা সরিষার তেল, জান্নাত সোয়াবিন, আপেল চানাচুর, প্রিন্স জুস এবং চমক কাপড় ধোয়ার সাবান তৈরি করে জেলার প্রত্যন্ত এলাকায় বিক্রি করে থাকেন।

Kurigram02

মেসার্স আপেল অয়েল মিলের মালিক হাবিবুর রহমান বলেন, বিএসটিআই’র অনুমোদন নিয়ে ঘোড়া মার্কা সরিষার তেল তৈরি করছেন তিনি। আর পরীক্ষামূলকভাবে সোয়াবিন তেল, সাবান, চানাচুর এবং জুস তৈরি করছেন। পরবর্তীতে বিএসটিআই থেকে এসব পণ্যের অনুমোদন নেবেন।

মেসার্স আপেল অয়েল মিলের পিকআপ চালক হিমেল আহমেদ জানান, মাসিক ১১ হাজার ৫০০ টাকা এবং ৯ হাজার টাকায় তারা দুইজন কাজ করছেন। তারা কচাকাটা, মাদারগঞ্জ, নুনখাওয়াসহ প্রত্যন্ত ও চরাঞ্চলে এসব পণ্য বিক্রি করেন ভ্যান ও পিকআপে করে। গাড়ি প্রতি প্রতিদিন তারা ৫/৭ হাজার টাকা লাভে পণ্য বিক্রি করেন।

খড়িবাড়ী বাজারের ব্যবসায়ী সন্তোষ কুমার রায়, আজিজুল হক ও শাহানুর রহমান জানান, এসব পণ্য দেখেই বোঝা যায় এগুলো নিম্নমানের। আমরা এগুলো দোকানে রাখি না।

ক্রেতা রহিম মিয়া, নুরুল ইসলাম, বুলবুলি আকতারসহ অনেকেই জানান, এসব পণ্য ভেজাল ও নিম্নমানের হওয়ায় তারা এলাকায় বিক্রি না করে গ্রামাঞ্চলের ছোট ছোট বাজারগুলোতে বিক্রি করে থাকেন। বিএসটিআই এবং মোবাইল কোর্টের নজরদারি না থাকায় এসব পণ্য বাজারে সয়লাব। অনেকেই এসব পণ্য ব্যবহার করে শারীরিকভাবে ক্ষতিগ্রস্থ হয়েছেন।

Kurigram02

এ বিষয়ে বিএসটিআই’এর রংপুর অঞ্চলের ফিল্ড অফিসার দেলোওয়ার হোসেন জানান, মেসার্স আপেল সরিষা অয়েল মিল নামে লাইসেন্স দেয়া আছে। তবে সেই লাইসেন্সের মেয়াদ চলতি বছরের জুন মাসেই শেষ। হাবিবুর রহমান তার কারখানায় অন্য কোনো পণ্য উৎপাদনের জন্য বিএসটিআই’র কাছে কোনো আবেদন করেননি।

উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মাছুমা আরেফিন বলেন, পণ্যগুলোর তালিকা দিন। আমি মোবাইল কোর্টের আওতায় প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেব।

ভারতে জেল খেটে দেশে ফিরলেন দুই তরুণীসহ তিনজন

0

ভালো কাজের প্রলোভনে পড়ে ভারতে পাচার হওয়া দুই তরুণী ও এক যুবক বিভিন্ন মেয়াদে জেল খেটে বিশেষ ট্রাভেল পারমিটের মাধ্যমে বেনাপোল চেকপোস্ট হয়ে দেশে ফিরেছেন। বৃহস্পতিবার দুপুর ১টার সময় ভারতীয় ইমিগ্রেশন পুলিশ বেনাপোল ইমিগ্রেশন পুলিশের কাছে তাদের হস্তান্তর করে।

এরা হলেন- নড়াইলের কালিয়া উপজেলার বাবুপুর গ্রামের আকরাম শেখের ছেলে আয়ুব শেখ (৪৪), একই উপজেলার পুরুলিয়া গ্রামের ইলিয়াছ শেখের মেয়ে লিনা খাতুন ওরফে সুমা (২৩) ও যশোরের সিরাজগঞ্জ গ্রামের আজিজ মোল্যার মেয়ে সোনালী মন্ডল ওরফে শেফালী খাতুন (২৪)।

বেনাপোল চেকপোস্ট পুলিশ ইমিগ্রেশনের উপ-পরিদর্শক (এসআই) রবিউল ইসলাম পলাশ জানান, ভালো কাজের প্রলোভনে এরা ভারতের গুজরাট ও মহারাষ্ট্রের গুহায় গিয়ে সে দেশের পুলিশের কাছে ধরা পড়ে। এরপর আদালতের মাধ্যমে ‘প্রটাকশন’ নামের একটি শেল্টার হোমে দুই তরুণী পাঁচ মাস ২০ দিন ও গুজরাট জেলখানায় আয়ুব শেখ ৩১ মাস জেল খাটার পর বৃহস্পতিবার দুপুরে বিশেষ ট্রাভেল পারমিটের মাধ্যমে দেশে ফেরে। তাদের বেনাপোল পোর্ট থানায় হস্তান্তর করা হয়েছে। সেখান থেকে রাইটস যশোর নামের একটি মানবাধিকার সংস্থার কাছে তুলে দেয়া হবে তাদের পরিবারের কাছে ফিরিয়ে দেয়ার জন্য।

রাইটস যশোরের এরিয়া কোয়ার্ডিনেটর তৌফিকুজ্জামান বলেন, রাইটসের মাধ্যমে দুই দেশের স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ে চিঠি চালাচালির একপর্যায়ে তাদের বিশেষ ট্র্রাভেল পারমিটের মাধ্যমে দেশে ফিরিয়ে আনা হয়। ফেরত আসাদের বেনাপোল পোর্ট থানার আনুষ্ঠানিকতা শেষে পরিবারের কাছে হস্তান্তর করা হবে।

মেয়েকে বলেছি, সব জমি তোর আমাকে শুধু দু’মুঠো খাবার দিস

0

একটি সন্তান লাভের জন্য কত কিছুই না করেন বাবা-মা। জন্মের পর যত্ন করে সন্তানকে মানুষ করেন বাবা-মা। সন্তান বড় হলে তাকে নিয়ে বাবা-মা হাজারো স্বপ্ন দেখেন। কোনো কোনো সন্তান বাবা-মায়ের স্বপ্ন পূরণ করে আবার কেউ তাদের স্বপ্ন ভেঙে চুরমার করে দেয়। এমনকি বাবা-মাকে বোঝা মনে করে বাড়ি থেকে বের করে দেয় সন্তানরা। এমনই এক বাবার স্বপ্ন ভঙের ঘটনা ঘটেছে ফরিদপুরের সদরপুর উপজেলার সদর ইউনিয়নের দশহাজার গ্রামে।

ফরিদপুরের সদরপুর উপজেলার সদর ইউনিয়নের দশহাজার গ্রামের বাসিন্দা ৮২ বছর বয়সী বৃদ্ধ আব্দুল আজিজ খাঁকে বাড়ি থেকে বের করে দিয়েছেন তার মেয়ে আসমা খাতুন। বৃদ্ধ আজিজ খাঁ পঙ্গু। পায়ের ওপর ভর করে দাঁড়াতে পারেন না। বসে বসে চলাচল করেন। এমন অসহায় বাবার জমিজমা দখল করে বাড়ি থেকে বের করে দিয়েছেন মেয়ে আসমা।

বিভিন্ন স্থানে ঘুরে এখন আজিজ খাঁর ঠাঁই হয়েছে ফরিদপুর বাস টার্মিনালে। টার্মিনালের যাত্রী সাধারণের জন্য স্থাপিত টয়লেটের পাশের এক পাশে রাত কাটান তিনি। দিনের বেলায় টার্মিনালে ভিক্ষা করেন, বিভিন্ন কাউন্টার ও চলাচলকারী মানুষের কাছ থেকে যা পান তা দিয়ে কোনোমতে দু’মুঠো খেয়ে বেঁচে আছেন বৃদ্ধ আজিজ খাঁ।

faridpur-Aziz

বৃহস্পতিবার দুপুরে শহরের বিভিন্ন স্থান ঘুরে ফরিদপুর বাস টার্মিনালের একটি কাউন্টারের সামনে তার দেখা মেলে। সেখানে বসে ভিক্ষা করছিলেন আজিজ খাঁ। তখন জাগো নিউজের প্রতিবেদকের সঙ্গে কথা হয় বৃদ্ধ আব্দুল আজিজ খাঁর।

বৃদ্ধ আব্দুল আজিজ খাঁ ভালোভাবে কথা বলতে পারেন না। ভাঙা ভাঙা গলায় কথা বললেও কথাগুলো জড়িয়ে যায়। এ প্রতিবেদক তার দুঃখের কথা শুনতে চাইলে বেশ খুশি হন।

এরপর আব্দুল আজিজ খাঁ শুরু করেন তার আজকের এই পরিণতির কথা। বলেন, বর্তমানে আমার বয়স ৮২ বছর। স্বাধীনতার-পূর্ববর্তী সময়ে পাশের গ্রামের একটি মেয়ের সঙ্গে আমার বিয়ে হয়। ওই স্ত্রীর ঘরে এক পুত্রসন্তান হয়। ওই সন্তানের নাম নজরুল। সে এখন কুষ্টিয়ায় থাকে, কাঠমিস্ত্রির কাজ করে। প্রথম স্ত্রী মারা যাওয়ার পর দ্বিতীয় বিয়ে করি আমি। দ্বিতীয় স্ত্রীর এক ছেলে ও দুই মেয়ে। ছেলে ঢাকায় রাজমিস্ত্রির কাজ করে। মেয়েদের বিয়ে হয়ে গেছে। দ্বিতীয় স্ত্রী অন্য একজনের সঙ্গে চলে গেছে। এরপর তৃতীয় বিয়ে করি আমি। তৃতীয় স্ত্রীর ঘরে জন্ম নেয় এক কন্যাসন্তান। তার নাম আসমা। এরপর আসমাকে আমার কাছে রেখে অন্য একজনের সঙ্গে চলে যায় আমার তৃতীয় স্ত্রী।

আসমাকে ঘিরে চলতে থাকে আমার জীবন। আসমা বড় হলে পাশের গ্রামের একটি ছেলেকে পছন্দ করে বিয়ে করে। কয়েক বছর যেতে না যেতেই আসমা ওই স্বামীকে ছেড়ে দিয়ে একই এলাকার রফিক খাঁ নামের এক ব্যক্তিকে বিয়ে করে আমার বাড়িতেই থাকতে শুরু করে। এরপরই আমার ওপর নেমে আসে নির্যাতন। আসমা ও তার স্বামী রফিক আমার ওপর প্রতিদিনই নির্যাতন চালাতো।

আব্দুল আজিজ খাঁ বলেন, স্বাধীনতা যুদ্ধের পরে আমার শরীরে এলার্জি দেখা দেয়। এরপর ধীরে ধীরে শরীর অবশ হয়ে আসতে থাকে, একপর্যায়ে আমার পায়ের শক্তি হারিয়ে ফেলি। চলাফেরা বন্ধ হয়ে যায়। কোনোরকম বসে বসে চলাফেরা করি। ওই সময় থেকে আজ পর্যন্ত এভাবেই চলছি আমি। দশহাজার গ্রামে ৬২ শতাংশ জমির ওপর আমার বাড়ি। বাড়ির পাশেই রয়েছে আরও দুই একর জমি। আসমার দ্বিতীয় বিয়ের পর তাকে আমি ২৩ শতাংশ জমি দেই বাড়ি করার জন্য, আসমা ওই জায়গায় ঘর তুলে থাকতে শুরু করে। এরপর পুরো বাড়িটি দখল করে নেয় আসমা ও তার স্বামী রফিক। আমার অন্য ছেলে-মেয়েরা বাইরে থাকায় তারা এদিকে আর আসে না, খোঁজখবরও নেয় না।

আব্দুল আজিজ বলেন, গত বছর আমাকে নির্যাতন করে বাড়ি থেকে বের করে দেয় আসমা। এলাকার বিভিন্ন মানুষের কাছে গিয়েও আমি বিচার পাইনি। আসমা ও রফিক সবাইকে ম্যানেজ করে আমাকে বাড়ি থেকে বের করে দেয়। আমাকে যখন বাড়ি থেকে বের করে দেয় আমি বলেছিলাম আমাকে শুধু দু’মুঠো খাবার দিস, জমিতো তোদেরই। কিন্তু তারা আমাকে বোঝা মনে করে বাড়ি থেকে বের করে দেয়। বাড়ি থেকে বের হয়ে আমার ভাগনি কোহিনুরের বাড়ি ঢেউখালীতে যাই। সেখানে কয়েক দিন থাকার পরই ভাগনি তার নামে জমি লিখে দিতে বলে, পরে আমি সেখান থেকে চলে আসি। চলতে চলতে একপর্যায়ে ফরিদপুর বাসস্ট্যান্ডে আসি। এক বছর এখানেই আছি। রাতে টয়লেটের পাশে ঘুমাই, দিনের বেলায় ভিক্ষা করি।

তিনি বলেন, কয়েক দিন আগে এক ভদ্রলোক আমার কথাগুলো শুনে আমাকে জেলা লিগ্যাল এইড অফিসে যেতে বলেন। আমি সেখানে গিয়ে আমার মেয়ে আসমার বিরুদ্ধে একটি অভিযোগ দিয়েছি।

faridpur-Aziz

ফরিদপুর বাস টার্মিনালের শান্ত হোটেল অ্যান্ড রেস্টুরেন্টের মালিক মীর কাবুল বলেন, প্রায় এক বছর ধরে বৃদ্ধ আজিজ এখানে রয়েছেন। রাতে টয়লেটের পাশে থাকেন। দিনের বেলায় ভিক্ষা করেন। ভিক্ষা করে কোনোদিন খাবার টাকা জোগাড় হয় আবার কোনোদিন হয় না। খাবার টাকা জোগাড় না হলে আমি সেদিনকার খাবার তাকে দেই। মানুষটা অনেক ভালো। বয়স হয়েছে, এখন অনেক অসুস্থ তিনি। মেয়ে তার সঙ্গে যে ব্যবহার করেছে তার বিচার হওয়া উচিত।

সদরপুর সদর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান শহীদুল ইসলাম বাবুল বলেন, শুধু আসমা নয়, আজিজ মিয়ারও দোষ আছে। ঘটনা যা শুনেছেন তা পুরো সঠিক নয়। ঘটনা কি ঘটেছে জানতে চাইলে তিনি এড়িয়ে গিয়ে ফোনের লাইন কেটে দেন। পরবর্তীতে ইউপি চেয়ারম্যানকে ফোন দিলে তিনি ফোন রিসিভ করেননি।

জেলা লিগ্যাল এইড অফিস সূত্রে জানা যায়, বৃদ্ধ আব্দুল আজিজ খাঁ তার মেয়ে আসমার বিরুদ্ধে যে অভিযোগ দিয়েছেন সেই অভিযোগের ভিত্তিতে আসমাকে নোটিশ পাঠানো হয়েছে। আগামী সপ্তাহে এ বিষয়ে শুনানি অনুষ্ঠিত হবে।

এদিকে বৃদ্ধ আব্দুল আজিজ খাঁর মেয়ে আসমার সঙ্গে মোবাইলে যোগাযোগ করা হলে সাংবাদিক পরিচয় পেয়ে তিনি ফোনের লাইন কেটে দিয়ে ফোন বন্ধ করে রাখেন। পরে একাধিকবার কল দিয়ে তার ফোন বন্ধ পাওয়া যায়।

বোনাস ৩০ মে, বেতন ২ জুনের আগে দেয়ার আহ্বান প্রতিমন্ত্রীর

0

গার্মেন্টস শ্রমিকদের ঈদবোনাস ৩০ মে ও মে মাসের বেতন ২ জুনের মধ্যে পরিশোধের আহ্বান জানিয়েছেন শ্রম ও কর্মসংস্থান প্রতিমন্ত্রী মন্নুজান সুফিয়ান।

বৃহস্পতিবার সচিবালয়ে ক্রাইসিস ম্যানেজমেন্ট কোর কমিটির সভায় এ আহ্বান জানান তিনি। শ্রম ও কর্মসংস্থান মন্ত্রণালয়ের সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জাননো হয়েছে।

চাঁদ দেখা সাপেক্ষে আগামী ৫ বা ৬ জুন দেশে পবিত্র ঈদুল ফিতর পালিত হবে।

শ্রম প্রতিমন্ত্রী বলেন, আমরা গার্মেন্টস মালিকদের আহ্বান জানিয়েছি যে, তারা ঈদুল ফিতরের বোনাস ৩০ মে, আর মে মাসের বেতন ২ জুনের মধ্যে প্রদান করবেন। মালিকপক্ষ ৩০ মের মধ্যে বোনাস ও ২ জুনের মধ্যে মে মাসের ২০ দিনের বেতন দিতে সম্মত হয়েছেন।’

gurment-2

তিনি বলেন, ‘আমরা বলেছি, যেসব মালিক সম্পূর্ণ বেতন দিতে পারবে তারা দিয়ে দেবেন। আর কোনো মালিক যদি মে মাসের সম্পূর্ণ বেতন না দিতে পারেন সেক্ষেত্রে শ্রমিকদের সঙ্গে আলোচনার মাধ্যমে বেতনের বিষয়টি সমাধান করবেন।’

সভায় বিজিএমইএ’র সভাপতি রুবানা হক বলেন, যেহেতু জুন মাসের প্রথম সপ্তাহে ঈদ উদযাপিত হবে তাই ঈদের ছুটির পরে গার্মেন্টসকর্মীরা বাকি ১০ দিনের বেতন পেলে তাদের জন্যই ভালো। শ্রমিকরা অন্তত ওই ১০ দিনের বেতনে বাকি মাসটি ভালোভাবে পার করতে পারবেন।’

তিনি বলেন, ‘সরকার, শ্রমিক, মালিক সবাই চায় দেশের সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ অর্থনৈতিক খাত গার্মেন্টস শিল্পে কোনো কারণে যেন শ্রমঅসস্তোষ দেখা না দেয়। গার্মেন্টস খাতে শৃংঙ্খলা রক্ষায় ও উৎপাদন নির্বিঘ্নে করতে সবাইকে একসঙ্গে কাজ করতে হবে।’

সভায় মন্ত্রণালয়ের ভারপ্রাপ্ত সচিব উম্মুল হাছনা, কল-কারখানা ও প্রতিষ্ঠান পরিদর্শন অধিদফতরের মহাপরিদর্শক শিবনাথ রায়, শ্রম অধিদফতরের মহাপরিচালক এ কে এম মিজানুর রহমান, শিল্প পুলিশের মহাপরিচালক আব্দুস সালাম, জাতীয় শ্রমিক লীগের সভাপতি শুক্কুর মাহমুদ, কার্যকরী সভাপতি ফজলুল হক মন্টু, বিভিন্ন আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর প্রতিনিধি; ঢাকা, নারায়ণগঞ্জ, নরসিংদীর জেলা প্রশাসকের প্রতিনিধিসহ বিভিন্ন শ্রমিক সংগঠনের নেতা, কোর কমিটির সদস্যরা অংশগ্রহণ করেন।

মোদিকে শেখ হাসিনার অভিনন্দন

0

ভারতের ১৭তম লোকসভা নির্বাচনে নিরঙ্কুশ বিজয়ের মাধ্যমে টানা দ্বিতীয় মেয়াদে ভারতে সরকার গঠন করতে যাওয়া নরেন্দ্র মোদিকে অভিনন্দন জানিয়েছেন বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

বৃহস্পতিবার (২৩ মে) নরেন্দ্র মোদিকে পাঠানো এক বার্তায় শেখ হাসিনা বলেছেন, ‘এই জোরালো রায়ে আপনার ওপর বিশ্বের সবচেয়ে বড় গণতান্ত্রিক দেশের জনগণের বিশ্বাস ও আস্থার প্রতিফলন ঘটেছে।’

সুবিধাজনক সময়ে নরেন্দ্র মোদিকে বাংলাদেশ সফরের আমন্ত্রণও জানান তিনি।

শেখ হাসিনা বলেন, ‘ভারতের সপ্তদশ লোকসভা নির্বাচনে আপনার গতিশীল নেতৃত্বে ভারতীয় জনতা পার্টির (বিজেপি) নেতৃত্বাধীন ন্যাশনাল ডেমোক্রেটিক অ্যালায়েন্সের (এনডিএ) বিপুল বিজয়ে আমি বাংলাদেশের জনগণ, সরকার এবং নিজের পক্ষ থেকে আপনাকে অভিনন্দন জানাচ্ছি।’

তিনি বলেন, ‘বাংলাদেশ সবসময় বিভিন্ন ক্ষেত্রে ভারতের সঙ্গে সম্পর্ককে সর্বোচ্চ গুরুত্ব দেয়, যা পারস্পরিক সুনাম, আস্থা এবং শ্রদ্ধাবোধের দ্বারা চলে আসছে।’

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা মুক্তিযুদ্ধের সময় বাংলাদেশের প্রতি ভারতের সমর্থনের কথাও স্মরণ করেন। তিনি বলেন, ‘আমাদের জনগণ আমাদের নতুন করে যে ম্যান্ডেট দিয়েছে, তার ওপর নির্ভর করে দুই দেশের সম্পর্ক আরও শক্তিশালী হবে এবং নতুন উচ্চতায় পৌঁছাবে।’

ওই বার্তায় শেখ হাসিনা ভারতের জনগণের শান্তি, সুখ এবং উন্নতি কামনা করার পাশাপাশি নরেন্দ্র মোদির সুস্বাস্থ্যও কামনা করেন।

গতবারের নির্বাচনের (২০১৪ সালের) চেয়ে এবার বিধ্বংসী রূপে জয়ী হতে যাচ্ছে নরেন্দ্র মোদি নেতৃত্বাধীন বিজেপি। দেশটির জাতীয় এই নির্বাচনে তিন শতাধিক আসনে জয়ী হয়ে দ্বিতীয় মেয়াদে সরকার গঠন করতে যাচ্ছে হিন্দুত্ববাদী এই রাজনৈতিক দল।

হার মেনে নিলেন রাহুল, অভিনন্দন জানালেন মোদিকে

0

ভারতের ১৭তম লোকসভা নির্বাচনে দেশটির ক্ষমতাসীন রাজনৈতিক দল ভারতীয় জনতা পার্টির (বিজেপি) কাছে হার মেনে নিলেন বিরোধী দল কংগ্রেসের সভাপতি রাহুল গান্ধী। নির্বাচনী ফলাফল পরবর্তী দলীয় অবস্থান জানাতে বৃহস্পতিবার সন্ধ্যার দিকে সংবাদ সম্মেলন ডাকেন তিনি।

সংবাদ সম্মেলনে এ হার মেনে নিয়ে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি ও বিজেপিকে শুভেচ্ছা জানান তিনি। কংগ্রেসের এই সভাপতি বলেন, এটা জনগণের সিদ্ধান্ত। তিনি বলেন, জনগণ পরিষ্কারভাবে তাদের সিদ্ধান্ত দিয়েছে। আমি পরিষ্কারভাবে বলেছি, জনতাই মালিক।

গতবারের নির্বাচনের (২০১৪ সালের) চেয়ে এবার বিধ্বংসী রূপে জয়ী হতে যাচ্ছে নরেন্দ্র মোদি নেতৃত্বাধীন বিজেপি। দেশটির জাতীয় এই নির্বাচনে তিন শতাধিক আসনে জয়ী হয়ে দ্বিতীয় মেয়াদে সরকার গঠন করতে যাচ্ছে হিন্দুত্ববাদী এই রাজনৈতিক দল।

৫৪২ আসনের লোকসভা নির্বাচনে বিজেপি নেতৃত্বাধীন এনডিএ জোট ৩৪২ আসনে এগিয়ে রয়েছে। অন্যদিকে দেশটির প্রধান বিরোধী দল কংগ্রেস নেতৃত্বাধীন ইউপিএ জোট পেয়েছে ৯১ আসন। বিজেপি একাই ৩০০’র বেশি আসনে জয় পেতে যাচ্ছে। এর আগে ২০১৪ সালে বিজেপি ২৮২ আসনে জয় পেয়েছিল, জোটসঙ্গীদের নিয়ে দলটির আসন দাঁড়িয়েছিল ৩৩৬।

গত তিন দশকের মধ্যে প্রথমবারের মতো বিজেপি একক সংখ্যাগরিষ্ঠ রাজনৈতিক দল হিসেবে সরকার গঠন করছে। বিজেপির বিশাল ব্যবধানের এই জয়ের পর প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম টুইটারে একটি টুইট করেছেন। এতে তিনি বলেছেন, আবারও ভারত জিতেছে।

ভূমিধস এই জয়ের পর টুইটে নরেন্দ্র মোদি বলেন, আমরা একসঙ্গে লড়বো। একসঙ্গে সমৃদ্ধ হবো। আমরা একত্রে শক্তিশালী ও অন্তর্ভুক্তিমূলক ভারত গড়বো। ভারত আবারও জয়ী হয়েছে। বিজয় ভারত।

ভারতের এবারের এই নির্বাচনের চূড়ান্ত ফল ঘোষণার আগেই ক্ষমতাসীন বিজেপি তিন শতাধিক আসনে জয়ী হতে যাচ্ছে বলে বুথ ফেরত জরিপে আভাস দেয়া হয়। দেশটির কট্টর ডানপন্থী দলগুলোর নেতৃত্বদানকারী ভারতীয় জনতা পার্টি (বিজেপি) জোট প্রথম ছয় দফার ৪৮৩ আসনের মধ্যে ২৯২ থেকে ৩১২টি আসনে জয়ী হতে পারে বলে জানানো হয়।

এদিকে নির্বাচনে জয়ী হওয়ায় ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদিকে এক টেলিগ্রাম বার্তায় শুভেচ্ছা জানিয়েছেন রাশিয়ার প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিন। জাপানের প্রধানমন্ত্রী শিনজো আবে টেলিফোন করে শুভেচ্ছা জানিয়েছেন। চিরবৈরী প্রতিবেশী চীনের প্রেসিডেন্ট শি জিনপিংও এক শুভেচ্ছা বার্তায় মোদিকে অভিনন্দন জানিয়েছেন।

Weather

Dinajpur
moderate rain
24.6 ° C
24.6 °
24.6 °
88 %
4.7kmh
100 %
Fri
30 °
Sat
35 °
Sun
34 °
Mon
35 °
Tue
34 °