শেখ হাসিনা দেবেন বিশেষ বার্তা

0
95
আওয়ামী লীগের ‘বিজয় উৎসবে’ দলীয় সভাপতি ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা দেশবাসীর পাশাপাশি নেতাকর্মীদের ‘বিশেষ বার্তা’ দেবেন বলে দলটির সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের জানিয়েছেন।
একাদশ সংসদ নির্বাচনে নিরঙ্কুশ জয় উদযাপনে শনিবার ঢাকার সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে এই ‘বিজয় উৎসবের’ আয়োজন করেছে আওয়ামী লীগ। আগের দিন শুক্রবার দলীয় নেতাদের নিয়ে সমাবেশের প্রস্তুতি দেখার পর সাংবাদিকদের সঙ্গে কথা বলেন ওবায়দুল কাদের। তিনি বলেন, “প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা সমাবেশে জনগণসহ দলীয় নেতাকর্মীদের উদ্দেশ্যেও বিশেষ বার্তা দেবেন।” নির্বাচনে বিশাল বিজয়ে টানা তৃতীয় মেয়াদে ক্ষমতায় আসা আওয়ামী লীগ সরকার তিনটি বিষয়ে খুব কঠোর অবস্থানে রয়েছে বলে জানান সড়ক পরিবহন ও সেতু মন্ত্রী কাদের। এই সমাবেশ থেকে জঙ্গিবাদ ও সন্ত্রাসের পাশাপাশি দুর্নীতির বিরুদ্ধেও কঠোর হুঁশিয়ারি আসতে পারে বলে আভাস দেন তিনি।

গত ৩০ ডিসেম্বরের নির্বাচনে ২৫৭টি আসনে জয় পেয়েছে আওয়ামী লীগ। জোটগতভাবে তাদের আসন সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ২৮৮টি।

এই বিজয় স্মরণীয় করে রাখতে সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে আওয়ামী লীগের প্রতীক নৌকার আদলে তৈরি করা হয়েছে বিশাল মঞ্চ।

বৈঠাসহ ছোট বড় ৪০টিরও বেশি নৌকা, বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান ও আওয়ামী লীগ সভানেত্রী শেখ হাসিনার ছবি সংবলিত ফেস্টুনে সাজানো হয়েছে সমাবেশ মাঠ।

মূল মঞ্চটি সাজানো হয়েছে একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে আওয়ামী লীগের ইশতেহারের মলাটের রঙে।

এই সমাবেশকে ‘মহাসমুদ্রে’ রূপ দিতে ঢাকার পার্শ্ববর্তী জেলা আওয়ামী লীগসহ সহযোগী সংগঠন এবং ঢাকা মহানগরের নেতাকর্মীদের নিয়ে কয়েক দফা বৈঠক করেছেন ওবায়দুল কাদের।

এই জনসভা ‘জনসমুদ্রে’ পরিণত হবে বলে আশা প্রকাশ আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক জাহাঙ্গীর কবির নানক বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকমকে বলেন, “বিজয় উৎসব পালন করতেই শনিবারের জনসভা।

“সমৃদ্ধির অগ্রযাত্রা অব্যাহত রাখতে দেশ ও জনগণের কল্যাণে বার্তা নিয়ে আসবেন জননেত্রী শেখ হাসিনা।”

দুপুর আড়াইটায় জনসভার মূল কার্যযক্রম শুরু হবে জানিয়ে আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক খালিদ মাহমুদ চৌধুরী বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকমকে বলেন, “শনিবারের এই বিজয় সমাবেশকে সফল করতে ঢাকা ও এর আশপাশের এলাকা থেকে নেতাকর্মীরা নানা সাজে সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে আসবে।”

বেলা ১১টার পর থেকে বাংলা একাডেমি, রমনা কালি মন্দির, টিএসসি ও চারুকলার সামনের প্রবেশ পথ দিয়ে সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে ঢোকা যাবে।

সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানের জন্য মূল বিজয় মঞ্চের সামনে আরেকটি মঞ্চ করা হয়েছে। সেখানে সকাল থেকেই গান-কবিতাসহ সাংস্কৃতিক পরিবেশনা হবে বলে জানান খালিদ মাহমুদ চৌধুরী।

আওয়ামী লীগের উপ প্রচার সম্পাদক আমিনুল ইসলাম আমিন জানান, রমনা পার্কের পাশের প্রবেশ পথটি ‘ভিআইপিদের’ জন্য বরাদ্দ থাকবে। প্রধানমন্ত্রীসহ দলের কেন্দ্রীয় নেতা, সংসদ সদস্য ও মহাজোটের নেতারা ওই ফটক দিয়ে প্রবেশ করবেন।

আওয়ামী লীগ সভানেত্রী শেখ হাসিনার উদ্দেশ্যে বক্তব্যের শুরুতে একটি অভিন্দনপত্র পাঠ করবেন দলের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের। মূল মঞ্চে কেন্দ্রীয় ১৪ দলের নেতারাসহ মহাজোটের নেতারাও থাকবেন বলে দলের একাধিক নেতা জানিয়েছেন।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here