জাবিতে রক্তাক্ত ইবির হ্যান্ডবল টিম

0
36

ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয় হ্যান্ডবল টিমের ওপর বর্বরোচিত হামলা চালিয়েছে জাহাঙ্গীর নগর বিশ্ববিদ্যালয়ের খেলোয়াড় ও সন্ত্রাসীরা। এ ঘটনায় ইবির সাবেক প্রক্টর, ক্রিড়া বিভাগের পরিচালকসহ ৯জন খেলোয়াড় রক্তাক্ত ও গুরুতর আহত হয়েছে। এর মাধ্যে হাত ও কোমর ভেঙ্গে ,রাব্বি ও ইমনের অবস্থা আশঙ্কাজনক।

প্রত্যক্ষদর্শী সূত্রে, বুধবার বিকেল ৪টায় জাহাঙ্গীর নগর বিশ্ববিদ্যালয় মাঠে ইবি ও জাবির খেলা শুরু হয়। বঙ্গবন্ধু আন্ত:বিশ্ববিদ্যালয় স্পোর্ট চ্যাম্পিয়নশিপ এর হ্যান্ডবলের সেমিফাইনাল ম্যাচ ছিল এটি। খেলা চলাকালীন ৩ পয়েন্টে এগিয়ে থাকা ইবি’র খেলোয়াড়দের বারবার ধাক্কা দিয়ে ফেলে দিচ্ছিল জাবি টিম। একাধিক বার ফাউল করার পরও রেফারি তাদের কোন ফাউল দেয়নি। পরে আবারো আরেক প্লেয়ারকে ফেলে দেয়ায় প্রতিবাদ জানালে জাবি টিম আক্রমণ করে বসে। এসময় বাইরে
থেকে অন্যন্য সন্ত্রাসীরা রড ও লাটিসোটা নিয়ে ইবি টিমের ওপর ঝাপিয়ে পড়ে। এতে ইবির সাবেক প্রক্টর ড. মাহবুবর রহমান, শারীরিক শিক্ষা বিভাগের পরিচালক ড. মো: সোহেল, টিম
প্রশিক্ষক শাহালম কোচী, খেলোয়াড় ইমন, রাব্বি, আশিক, শিমুল, সাকিব, হৃদয়, সালমান, দ্বীপন, জাকারিয়া, শোভন, সালভি, সৌরভ গুরুতর আহত হয়। প্রচন্ড মারপিটে রাব্বির হাত ও ইমনের কোমর ভেঙ্গে গেছে বলে জানা গেছে। এছাড়া ড. মো: সোহেলের নাক ফেটে যায় প্রচুর রক্ত ক্ষরণ হয়। এর আগে গত শুক্রবার ইবি টিমের প্লেয়ারদের মাথায় পিস্তল ঠেকিয়ে হত্যার হুমকি দিয়েছিল তারা।

সেদিন ক্যাম্পাস ছেড়ে গেলেও নিরাপত্তার আশ্বাসে আবারো খেলতে আসে ইবি টিম। এদিকে হামলার প্রতিবাদে ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়ের সাধারণ শিক্ষার্থীরা তাৎক্ষণিক আন্দোলনে নেমেছে। তারা কুষ্টিয়া-খুলনা মহাসড়ক অবরোধ করে আন্দোলন শুরু করে। শিক্ষার্থীদের দাবি, দেশের ক্রিড়াঙ্গণে জাহাঙ্গীর নগর বিশ্ববিদ্যালয়কে কালো তালিকাভূক্ত করতে হবে। আজীবনের জন্য তাদের বিশ্ববিদ্যালয়ে ভেন্যু নির্ধারণ বন্ধ করতে হবে। এঘটনায় তিব্র ক্ষোভ ও নিন্দা জানিয়েছে ইবি প্রশাসন, শিক্ষক সমিতি, ছাত্র-উপদেষ্টা, শাখা ছাত্রদল, ছাত্রলীগসহ পুরো ইবি পরিবার। হামলার বিষয়ে জাবি প্রক্টর আ.স.ম. ফিরোজুল হাসান বলেন, বিশ্ববিদ্যালয়ের পক্ষ থেকে আমরা আন্তরিকভাবে দু:খ প্রকাশ করছি। নিরাপত্তা দিতে না পারায় আমরা মর্মাহত। ইবি ভিসি ড. রাশিদ আসকারী বলেন, ‘আমি এই বর্বরোচিত হামলার তিব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানাচ্ছি। অনতিবিলম্বে জড়িতদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির ব্যবস্থা করতে সংশ্লিষ্টদের প্রতি জোড় দাবি জানাচ্ছি।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here